বুধবার, ১৬ Jun ২০২১, ০৪:২৩ পূর্বাহ্ন

দুই বছর আগে এক নারীর স্বামী মারা যান। স্বামীর সঙ্গে তার সংসার জীবন ছিল ৯ বছরের। স্বামীর মারা যাওয়ার পরপরই তিন সন্তানকে নিয়ে বাবার বাড়ি বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলায় চলে আসেন তিনি। সন্তানদের নিয়ে সেখানেই বসবাস কর আসছেন ওই নারী।

উপজেলার এক চাতালে শ্রমিক হিসেবে কাজও করতেন তিনি। কিন্তু এরই মধ্যেই তিনি সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছেন। অনাগত সন্তানের পিতৃপরিচয়ের দাবিতে সারিয়াকান্দি থানায় রোববার সন্ধ্যায় লিখিত অভিযোগ করেছেন ওই নারী।

অভিযোগে বলা হয়েছে, চাতালে কাজ করার সুবাদে তারাজুল ইসলাম নামে একজনের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। পরবর্তীতে সুযোগ পেয়ে তারাজুল তাকে ধর্ষণ করেন। চাতালের পাশে বাঁশবাগানে তাকে নিয়ে ধর্ষণ করা হয়। এতেই তিনি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছেন। সম্প্রতি তারাজুল তাকে বিয়ের আশ্বাস দিয়েছিলেন। কিন্তু বর্তমানে বিয়েতে আর রাজি হচ্ছেন না তারাজুল। সন্তানের পিতৃপরিচয় দিতে নারাজ তিনি। লোকলজ্জার ভয়ে বিষয়টি তিনি গোপন রেখেছিলেন। তবে বর্তমানে এটি গোপন রাখা আর সম্ভব হচ্ছে না তার পক্ষে।

অভিযুক্ত তারাজুল উপজেলার আফজাল ফকিরের ছেলে। তিনি উপজেলার হাটফুলবাড়ী এলাকায় অটোরিকশা মেরামতের কাজ করেন। কথা হয় তার সঙ্গে। তিনি বলেন, ওই নারীকে আমি চিনি। তার গর্ভে থাকা সন্তান আমার না।

এ বিষয়ে সারিয়াকান্দি থানার এসআই মাহাবুব হাসান জনান, অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন