রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ১১:২০ অপরাহ্ন

নুসরাত বলেন, “আসলে ওই সময়টা পুরোদমে উপভোগ করেছি। ছেলে জন্মের (Nusrat Jahan Baby) পরই কাজে যোগ দি তাতে রাজি ছিলেন না যশ ও আমার মা-বাবা। ওদের মনে হয়েছিল আমি নিজের স্বাস্থ্যের কথা ভাবছি না। তবে আমার কাছে আমার মানিসক স্বাস্থ্যটা বেশি জরুরি ছিল। আসলে প্রথমে অল্প সময়ের জন্য কাজ করতে শুরু করি। তাই কাজে যেতাম, ফিরে এসে সন্তানকে খাওয়াতাম, ফের কাজে যেতাম। এটা আমার চ্যালেঞ্জিং ছিল তবে অসম্ভব নয়, এইভাবে আমি প্রসব-পরবর্তী ডিপ্রেশনের কাছে হার মানিনি”।

তবে নুসরাতের অন্তঃসত্ত্বা ) অবস্থা বেশ অনেকটা ওজেন বৃদ্ধি পায় কিন্তু কীভাবে ছেলের জন্মের তিনমাসের মধ্যে স্লিম হলেন?

নুসরাতের (Nusrat Jahan) কথায়, “আমার ওজন ছিল ৪৭ কেজি যখন আমি অন্তঃসত্ত্বা হই। আর যখন আমি আট মাসের গর্ভবতী তখন আমার ওজন ছিল ৭৫ কেজি! এই সময় ‘ক্রেজি’ হরমোনের পাল্লায় পরি। যার ফলে সারাক্ষণ Yash Dasgupta আমি দুশতাম যে তোমার জন্যই আমার ওজন বেড়েছে। তবে যশ কথা দিয়েছিল চিকিৎসক যখন রাজি হবে ওয়ার্ক করতে আমাকে পুণরায় শেপে ফিরিয়ে দেবে ও। এখন আমি গর্ব করে বলতে পারি , আগের চেয়েও অনেক বেশি শক্তিশালী আর ফিট আমি। আমরা একসঙ্গে ওয়ার্ক আউট করি, জিমটা আমাদের জীবনের বিরাট অংশ। যশ এটা নিশ্চই মানবে আমি ওঁর সবথেকে বাধ্য ছাত্রী।”

পাশপাশি পার্টনার হিসেবে ও বাবা হিসেবে ১০ নম্বর দিতে হলে অভিনেত্রী পার্টনার হিসেবে যশকে ১০ এ ১০ দেন। অন্যদিকে বাবা হিসেবে নম্বর দিতে অস্বীকার করেন আসলে তিনি বলেন “আমার কাজ ভাগ করে নিয়েছি দুজনের মধ্যে, তেমন নিজেদের জন্য সময়ও ঠিক বার করে নি।”

আরও পড়ুন