শুক্রবার, ১৯ অগাস্ট ২০২২, ০৬:০৮ পূর্বাহ্ন

মাগুরার শ্রীপুরের সারঙ্গদিয়া গ্রামে থেকে খুলনা ডিএসবির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এডিসি) লাবনী আক্তারের ঝুল’ন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) শ্রীপুর থানা পুলিশ ভোর রাতে লা’শটি উদ্ধার করে।

লাবণীর বাবা শফিকুল আজমের ধারণা, স্বামীর সঙ্গে পারিবারিক বিরোধের জে’র ধরে তার মেয়ে অ’ত্মহ’ত্যা করে থাকতে পারে। তিনি বলেন, গত ১৭ জুলাই এক সপ্তাহের ছুটিতে লাবনী গ্রামের বাড়িতে বেড়াতে আসে। গ্রামের বাড়িতে এসে সে শ্রীপুর উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের সারঙ্গ দিয়া গ্রামে তার নানা বাড়িতে ছিল। বুধবার গভীর রাতে সে গ’লায় ও’ড়না পেঁ’চিয়ে ফাঁ’স নিয়ে আ’ত্মহ’ত্যা করেছে। সকালে ডাকাডাকির পরেও দরজা না খুললে দরজা ভে’ঙে ভেতরে ঢুকে তার দে’হ ঝু’লন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়।

সাংসারিক বিষয় নিয়ে স্বামীর সঙ্গে লাবনীর কলহ চলছিল উল্লেখ করে শফিকুল আজম বলেন, স্বামীর সঙ্গে বনিবনা হচ্ছিল না বলেই আমার মেয়ে আ’ত্মহ’ত্যার পথ বেছে নিয়েছে।

শ্রীপুর থানার ওসি প্রিটন সরকার বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বলেন, ময়’নাতদ’ন্তের জন্য মৃ’তদেহ মাগুরা ম’র্গে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

চৌকস পুলিশ অফিসার খন্দকার লাবনী ৩০তম বিসিএস এর মাধ্যমে সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে চাকরিতে যোগদান করেন। লাবনী খন্দকার শফিকুল আজমের (সাবেক নাকোল রাইচরণ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক) ১ম কন্যা এবং মাগুরা শ্রীপুরের সারঙ্গদিয়া গ্রামের প্রয়াত আব্দুল কুদ্দুস মাস্টারের নাতনি ও শিক্ষা অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালক প্রয়াত মাহবুবুর রহমানের ভাগনি। তার দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে। তার স্বামী ভারতে রয়েছেন।

আরও পড়ুন