শনিবার, ০২ Jul ২০২২, ১১:৪৬ অপরাহ্ন

করোনার জন্য বন্ধ স্কুল। অনলাইনে চলছে ক্লাস। যার জন্য দরকার স্মার্টফোন নয়তো ল্যাপটপে। তুলসি কুমারের সেই ক্ষমতা নেই। তাঁর বাবার স্মার্টফোন কেনার আর্থিক সঙ্গতি নেই।

তাই আম বেচে ১১ বছরের মেয়ে টাকা জমানোর চেষ্টা করছিল। তার কাছে মসিহা হয়ে এলেন অমেয়। ঝটিতি স্মার্টফোন কিনে ফেলল তুলসি।

তার আর আম বেচতে হবে না। এবার বাকি বন্ধুদের মতো ক্লাস করতে পারবে এই পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রীও। তুলসি ঝাড়খণ্ডের জামশেদপুরের বাসিন্দা।

সেখানকারই এক সরকারি স্কুলে পড়ে সে। দিন কয়েক আগে এক সংবাদ মাধ্যম তার লড়াইয়ের গল্প তুলে ধরে। তার পড়াশোনার আগ্রহের কথা প্রচারে আসে। এর পরেই এগিয়ে এলেন অমেয়। তিনি ভ্যালুয়েবল এডুটেইনমেন্টের ম্যানেজিং ডিরেক্টর।

তুলসির কথা স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমে জানতে পারেন। এর পরেই তুলসির থেকে ১২টি আম কেনেন অমেয়। প্রতি আম পিছু দাম দেন ১০ হাজার টাকা।

গুনে গুনে ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা দাম চোকান তিনি। বুধবার তুলসির বাবা শ্রীমল কুমারের অ্যাকাউন্টে ট্রান্সফার করেন। ওই টাকা দিয়েই স্মার্টফোন কিনল তুলসি।

আরও পড়ুন