মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২, ০৭:২১ পূর্বাহ্ন

শ্বশুরের করা মামলায় আদালত থেকে রায় ঘোষণার ৯ বছর পর এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে শাশুড়িকে নিয়ে লাপাত্তা হওয়ার অভিযোগ আনেন শ্বশুর। ২০১০ সালের ডিসেম্বরে এ ঘটনা ঘটলেও পরের বছর মার্চে আদালতে মামলা করেন শ্বশুর মতি মিয়া। ২০১৩ সালে আদালত আসামি আয়াতুল ইসলামের সাজা ঘোষণা করেন।এর পর থেকে তিনি পলাতক ছিলেন।

নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে। রবিবার রাতে আয়াতুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। আজ সোমবার তাকে নেত্রকোনার আদালতে পাঠানো হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, ২০১১ সালে বাদী তার স্ত্রীকে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ এনে নিজের মেয়ের জামাইয়ের বিরুদ্ধে মামলা করেন। এই মামলায় জামিন নিয়ে আসামি আয়াতুল পলাতক ছিলেন। ২০১৩ সালে মামলার রায়ে আয়াতুলকে দেড় বছরের কারাদণ্ড ও দুই হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো দুই মাসের কারাদণ্ডাদেশ দেন আদালত। রায় ঘোষণার পর থেকেই পলাতক ছিলেন তিনি।

গতকাল রবিবার রাতে নেত্রকোনার আটপাড়া উপজেলার কৃষ্ণপুর এলাকা থেকে আয়াতুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এর মধ‍্যে বছর দেড়েক আগে মামলার বাদী মতি মিয়া মারা গেছেন বলে জানা গেছে।

মোহনগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম বলেন, গ্রেপ্তারি পরোয়ানামূলে আয়াতুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজ সোমবার তাকে আদালতে পাঠানো হবে।

আরও পড়ুন