সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ০৭:০৭ পূর্বাহ্ন

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের ‘এ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা চলাকালে প্রক্সি পরীক্ষা দেয়ার অভিযোগে ৩ জনকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্তরা তাদের দোষ শিকার করলে এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয় তাদের। পরীক্ষার জন্য নিয়োজিত ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার কৌশিক আহমেদ তাদের এই কারাদন্ড দেন।

মঙ্গলবার (২৬ জুলাই) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তিনটি ভিন্ন পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে তাদের আটক করা হয়।

দন্ডপ্রাপ্ত প্রক্সি পরীক্ষার্থীরা হচ্ছে গ্রুপ-১ এর পরীক্ষায় মো. এখলাসুর রহমান। সে রোল: ১৭২২৮ এর পরীক্ষার্থী হয়ে পরীক্ষা দিচ্ছিলো। তিনি ঢাবির সংগীত বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী। তিনি জয়পুরহাটের পাঁচবিবি এলাকার বাসিন্দা আবুল কাশেমের ছেলে। দণ্ডপ্রাপ্ত দ্বিতীয় জন হচ্ছে সজীব আহমেদ। তিনি গ্রুপ-২ এর রোল ৩৯৫৩৪ এর পরীক্ষার্থী তানভীর আহমেদের হয়ে পরিক্ষা দিচ্ছিলো। তিনি ঢাকার নারায়ণগঞ্জের বাসিন্দা আব্দুস সালামের ছেলে। তৃতীয় জন হচ্ছে পঞ্চগড়ের মো.জয়নাল আবেদীনের মেয়ে জান্নাতুল মেহজাবিন। সে ৬২৮২৮ এর পরীক্ষার্থী মোছা ইসরাত জাহানের হয়ে পরিক্ষা দিচ্ছিলো।

প্রক্টর অফিস সুত্রে জানা যায়, এ ইউনিটে প্রথম শিফটের ভর্তি পরীক্ষা চলাকালে ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া একাডেমিক ভবনের ২২২ নম্বর রুমে থেকে মূল পরীক্ষার্থী তামিম হাসান লিমনের পরিবর্তে মো. একলাসুর রহমানকে প্রক্সি দেওয়ার অভিযোগে আটক করে। অপরদিকে দ্বিতীয় শিফটে সত্যেন্দ্রনাথ বসু একাডেমিক ভবন থেকে মূল পরীক্ষার্থী তানভীর আহম্মেদের পরিবর্তে পরীক্ষা দেয়ার অভিযোগ সজীব আহমেদ নামে দ্বিতীয়জনকে আটক করা হয়েছে। এছাড়া ৩য় শিফট থেকে জান্নাতুল মেহজাবিন মোছা ইসরাত জাহানের হয়ে পরিক্ষা দিচ্ছিলো। মেহজাবিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী বলে জানা গেছে।

জানতে চাইলে প্রক্টর অধ্যাপক আসাবুল হক বলেন, ভর্তি পরীক্ষা চলাকালে নিয়ম বহির্ভূতভাবে বদলি পরীক্ষা দেয়ার সময় ৩ জনকে আটক করা হয়েছে। এবং তাদেরকে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে। ম্যাজিস্ট্রেট তাদের ৩ জনকে ১ বছর করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০২১-২২ সেশনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা চলমান। বিশ্ববিদ্যালয়ে দ্বিতীয় দিনের মতো এ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা চলছে।

আরও পড়ুন