মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২, ০৬:২৯ পূর্বাহ্ন

২০২২ সালের জুন মাস পর্যন্ত দেশের সব ব্যাংককে গাড়ি কেনা বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। সেই সাথে অ্যাপায়ন, ভ্রমণ, আসবাব ও বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম কেনার খরচও অর্ধেক করে দেয়া হয়েছে।

বুধবার (২৭ জুলাই) বাংলাদেশ ব্যাংক জারিকৃত এক প্রজ্ঞাপনে এ নির্দেশ জারি করা হয়েছে। এর আগে, মঙ্গলবার (২৬ জুলাই) সরকারের নির্দেশনার সাথে সঙ্গতি রেখে ব্যাংকের বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে ব্যাংকের খরচ কমানোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছিল। এদিন পরপর দুদিন ব্যাংকের খরচ কমাতে দুটি নির্দেশনা জারি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বুধবারের নির্দেশনায় বলা হয়েছে, বৈশ্বিক অর্থনৈতিক প্রেক্ষাপটে সরকার চলতি ২০২২–২৩ অর্থবছরের বিভিন্ন খাতে পরিচালন ও উন্নয়ন ব্যয় স্থগিত বা হ্রাসের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তারই অংশ হিসেবে ব্যাংকের কিছু পরিচালন ও উন্নয়ন ব্যয় স্থগিত বা হ্রাসের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। নির্দেশনা অনুযায়ী, চলতি বছরের জুলাই থেকে ডিসেম্বর ও আগামী বছরের জানুয়ারি থেকে জুন মাস পর্যন্ত ব্যাংকের নতুন ও প্রতিস্থাপক হিসেবে সব ধরনের গাড়ি কেনা বন্ধ থাকবে বলে জানানো হয়েছে।

এ ছাড়া জরুরি ও অপরিহার্য ক্ষেত্র বিবেচনায় আপ্যায়ন, ভ্রমণ, কম্পিউটার ও আনুষঙ্গিক, বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম, আসবাব ও অন্যান্য মনিহারি খাতে বরাদ্দ করা অর্থের সর্বোচ্চ ৫০ শতাংশ ব্যয় করতে পারবে ব্যাংকগুলো।

বাংলাদেশ ব্যাংক জানিয়েছে, গাড়ি কেনা বন্ধ এবং অ্যাপায়ন, ভ্রমণ, কম্পিউটার ও আনুষঙ্গিক, বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম, আসবাবসহ মনিহারি পণ্য কেনাকাটায় খরচ অর্ধেক কমানোর ফলে যে অর্থ সাশ্রয় হবে তা অন্য কোনো খাতে খরচ করা যাবে না।

বাংলাদেশ ব্যাংক আরও জানিয়েছে, নির্দেশনা অনুযায়ী খরচ কমানোসংক্রান্ত তথ্য ও দলিলপত্র ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে সংরক্ষণ করতে হবে। বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিদর্শক দল ব্যাংক পরিদর্শনে গিয়ে এ সংক্রান্ত তথ্য ও দলিলপত্র দেখতে চাইলে তা যথাযথভাবে সরবরাহ করতে হবে। এছাড়া গাড়ি কেনা ও বিভিন্ন সামগ্রী কেনাকাটার ক্ষেত্রে ব্যাংকগুলো কী পরিমাণ অর্থ খরচ করেছে, তা বার্ষিক আর্থিক প্রতিবেদনেও প্রকাশ করতে হবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। সেক্ষেত্রে চলতি বছরের ডিসেম্বর ও আগামী বছরের ডিসেম্বরে সমাপ্ত অর্থ বছরের আর্থিক প্রতিবেদনে এসব তথ্য দিতে হবে।

আরও পড়ুন