সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ০৮:৪৫ অপরাহ্ন

নোয়াখালী সদর উপজেলায় বাড়িতে ঢুকে গৃহবধূকে পিটিয়ে আহত করা গ্রামপুলিশ নুর হোসেনকে (৩০) আটক করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) সকালে কালাদরাপ ইউপির ১নং ওয়ার্ড থেকে তাকে আটক করা হয়। এর আগে বুধবার রাতে ৫৫ সেকেন্ডের মারধরের ওই ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়।

ভিডিওতে দেখা যায়, গ্রামপুলিশ নুর হোসেন ভুক্তভোগী ওই গৃহবধূকে একটি লা’ঠি দিয়ে এলোপাতাড়ি পি’টাতে থাকে। এ সময় পাশে গৃহবধূর শিশু ছেলে কান্না করছিল। এ সময় নি’র্যাতিত ওই নারীকে উদ্ধার করেত এগিয়ে আসে বাড়ির অন্য কয়েকজন নারী।

পরে এ ঘটনায় নি’র্যাতিতা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দিলে বুধবার (২৭ জুলাই) বিকেলে তাকে শোকজ করা হয়। বৃহস্পতিবার সকালে সুধারাম মডেল থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত নূর হোসেনকে আটক করে।

জানা গেছে, কালাদরাপ ১নং ওয়ার্ডের ইউনুছের বাড়ির সীমানা নিয়ে পার্শ্ববর্তী সাহাব উদ্দিনের বিরোধ চলছিল। গত ১৯ জুলাই সকালে গ্রামপুলিশ নুর হোসেন ওই বাড়িতে গিয়ে টিনের সীমানাটি ৪ হাত উত্তরে সরিয়ে ফেলতে চাইলে তাতে বাধা দেন ভুক্তভোগী নারী। এ সময় নূর হোসেন তাকে প্রথমে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ ও পরে এলোপাতাড়ি মা’রধর করে। পরে অসুস্থ অবস্থায় নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হয়ে ২০ থেকে ২৪ জুলাই পর্যন্ত চিকিৎসা নেন তিনি। বুধবার ওই নি’র্যাতনের ভিডিওটি ভা’ইরাল হলে সচেতন মহল ও প্রশাসনের নজরে আসে।

সুধারাম মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে গৃহবধূ নি’র্যাতনের ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর ভিডিওতে অভিযুক্ত গ্রাম পুলিশ নূর হোসেনকে তার বাড়ি থেকে আ’টক করা হয়। পরবর্তীতে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন