মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২, ০৬:৪৫ পূর্বাহ্ন

আমরা জানি স্কুলে শিক্ষার্থীদের পড়ানোই একজন শিক্ষকের কাজ। তার বদলে শ্রেণিকক্ষে আরামের বিশ্রাম নিচ্ছিলেন তিনি। শুধু তাই নয়, তার হাত ম্যাসাজ করে দিচ্ছিল এক খুদে শিক্ষার্থী। অনেকে মনে করেন, এমনটা হয়তো প্রতিদিনই চলতো।

কিন্তু এবারে প্রবল চাপে পড়েছেন উত্তরপ্রদেশের একটি সরকারি স্কুলের ওই শিক্ষিকা। কারণ খুদে ছাত্রকে দিয়ে গা-হাত টেপানোর ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। এই ঘটনায় নিন্দার ঝড় ওঠার পড়েই নড়েচড়ে বসেছে রাজ্যের স্কুল শিক্ষা দপ্তর। ওই শিক্ষিকাকে বরখাস্ত করা হয়েছে। পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এ ঘটনাটি ভারতের উত্তরপ্রদেশের হরদইয়ের পোখারি প্রাইমারি স্কুলের। অভিযুক্ত শিক্ষিকার নাম উর্মিলা সিং। উর্মিলা এখন অনলাইন দুনিয়ায় ভাইরাল। যে ভিডিও নিয়ে এত অভিযোগ সেখানে দেখা গিয়েছে, শ্রেণিকক্ষে একটি চেয়ারে বসে শিক্ষিকা উর্মিলা সিং। পাশে দাঁড়িয়ে তার বাঁ হাত ম্যাসাজ করে দিচ্ছে এক খুদে শিক্ষার্থী। বাকিরা নিজেদের মতো আছে, কথা বলছে, খেলছে।

কেউ একজন ওই মুহূর্তের ভিডিও করে ও সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে দেয়। যা ভাইরাল হয়। এরপরেই নিন্দায় সরব হয় নেটিজেনরা। সকলেই প্রশ্ন তোলেন, তিনি কি পড়ানোর বদলে স্কুলে আরাম করতে আসেন? খুদে শিক্ষার্থী কি পরিচারক? কীভাবে একজন শিক্ষিকা এক ছাত্রকে দিয়ে স্কুলে ক্লাস চলাকালীন ম্যাসাজ করাতে পারেন?

কেউ কেউ বলেন, শিশু শ্রমিকের মতো ব্যবহার করা হয়েছে ওই খুদের সঙ্গে। রাজ্যেটির প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ভিপি সিং জানিয়েছেন, ভিডিও ভাইরাল হওয়ার ঘটনা তার নজরে এসেছে। ব্লক শিক্ষা কর্মকর্তাকে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। তদন্ত করা হবে। দোষ প্রমাণিত হলে বড় শাস্তি দেওয়া হবে শিক্ষিকাকে।

আরও পড়ুন