শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০৩:২৬ পূর্বাহ্ন

মেয়েকে নিয়ে এসেছিলাম ট্রেনের টয়লেটে। হঠাৎ করে টায়ার পোড়ার গন্ধ পেলাম। এরপর টয়লেট থেকে বের হয়ে দেখি ট্রেনের নিচে একটি হাইস গাড়ি। আর গাড়ির ভেতরে কিছু মানুষ না’ড়া-ছা’ড়া করতেছে। এরমধ্যে দুইজন র’ক্তবমি করতেছিল। পরে গাড়ির ভেতর থেকে বের হতে থাকে একটার পর একটা ম’রদেহ।

তখনও ভাবিনি গাড়িতে এত মানুষ ছিল। এক এক করে ১১ টা ম’রদেহ বের করা হলো। মীরসরাইয়ের ট্রেন দু’র্ঘটনার এমন ভ’য়াবহ বর্নণা দিচ্ছিলেন সেই ট্রেনের যাত্রী কণ্ঠশিল্পী জনি খোন্দকার। তিনি বলেন, ঠিক দুপুর ১ টা ৪৫ মিনিটের দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এদিকে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড রেলওয়ে পুলিশ ফাঁ’ড়ির ইনচার্জ খোরশেদ আলম বলেন, মোট ১১টা লাশ আমরা পেয়েছি। তাদের মিরসরাই মাস্তাননগর হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। আহত বাকি পাঁচজনকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। এদিকে বিকেল ৪টা ২৫ মিনিটের দিকে ঘটনাস্থলে উদ্ধার ট্রেনটি এসে পৌঁছায়।

স্থানীয়রা জানান, রেললাইন পার হওয়ার সময় মাইক্রোবাসকে ধাক্কা দিয়ে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামের উদ্দেশে ছেড়ে আসা মহানগর প্রভাতী ট্রেন প্রায় এক কিলোমিটার সামনে নিয়ে যায়। মাইক্রোবাসের যাত্রীরা খৈয়াছড়া ঝরনা দেখতে আসছিলেন।

তারা ‘আর অ্যান্ড জে’ কোচিং সেন্টারের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ ১৬ জন শুক্রবার সকাল ৮টায় হাটহাজারীর আমান বাজার থেকে মাইক্রোবাসযোগে খৈয়াছড়া ঝরনায় ঘুরতে যান। ফেরার পথে দুপুর পৌনে ২টার দিকে বারতাকিয়া রেলওয়ে স্টেশন এলাকায় তাদের বহনকারী মাইক্রোবাসকে ধাক্কা দেয় চট্টগ্রামমুখী মহানগর প্রভাতী ট্রেন। এতে ঘটনাস্থলেই ১১ জন নিহত হন।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার (২৯ জুলাই) চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলায় গতকাল শুক্রবার (২৯ জুলাই) বিকেলে মহানগর প্রভাতী ট্রেন ও পর্যটকবাহী মাইক্রোবাসের সংঘ’র্ষের ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১১ জন নিহত হয়েছে। স্থানীয় প্রশাসন নিহতদের ম’রদেহ পরিবারের সদস্যদের কাছে বুঝিয়ে দিয়েছে।

আরও পড়ুন