শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০২:০৪ পূর্বাহ্ন

কথায় বলে, ভাগ্যে থাকলে তা কেউ মারতে পারে না। আর যদি ভাগ্যে না থাকে, তাহলে শত চেষ্টা করেও ফল পাওয়া যায় না। আর এরকমটাই হল আমেরিকার এক ব্যক্তির সঙ্গে। লক্ষ লক্ষ টাকার বিরল মাছ হাতে পেয়েও ছেড়ে দিলেন লেকের জলে। যা থেকে তিনি রাতারাতি কোটপতি হয়ে যেতে পারতেন।

মার্কিন সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, আমেরিকার আরকানসাসে বসবাসকারী জোশ রজার লেকের জলে মাছ ধরছিলেন। এমন সময় তাঁর জালে আসে বিরল প্রজাতির সোনালি রঙের একটি মাছ। বিজ্ঞানীদের ভাষায় এই মাছের নাম ‘খাদ’, যা দুর্লভ। এই মাছ পাওয়া ভাগ্যের ব্যাপার। লক্ষ লক্ষ টাকায় বিক্রি হয় এই মাছ। বাস মাছের রং সোনার মতো হওয়ায় এবং সোনার মাছও বলা হয়ে থাকে। অর্থাৎ কিছু সময়ের জন্য জোশ রজারের ভাগ্য সহায় হলেও, তা ধরে রাখতে পারলেন না তিনি।

বিজ্ঞানীদের মতে, জেনোক্রোমিজমের কারণে এই মাছের রঙ বদলে গিয়েছিল। এই ঘরনের ঘটনা ঘটতে দেখা যায় শরীরের ভিতরে চলমান একটি বিশেষ রাসায়নিকের কারণে। এই মাছের রং সোনালি হয়ে গেলেও, এটি সম্পূর্ণ সুস্থই থাকে। কিন্তু হলুদ রঙের মাছ জালে আটকানোর পর জোশ রজার ভাবেন মাছটি বোধ হয় অসুস্থ। আর সেই কারণে ছবি তোলার পর মাছটিকে তিনি জলে ছেড়ে দেন।

মাছের সঙ্গে তোলা ছবি স্যোশাল মিডিয়ায় পস্ট করার পরই মাথায় হাত পড়ে জোশ রজারের। সেখানে মানুষজনের কমেন্ট দেখে তিনি জানতে পারেন, যে মাছটিকে তিনি জলে ছেড়ে দিয়েছেন, তা কোন সাধারণ মাছ নয়। লক্ষাধিক টাকার বিরল প্রজতির মাছ ছিল সেটি। প্রায় ১৬ ইঞ্চি দৈর্ঘ্যের এবং ১ কেজি ওজনের এই মাছ ছেড়ে দিয়ে তিনি বড় ভুল করেছেন।

আরও পড়ুন