বৃহস্পতিবার, ১৮ অগাস্ট ২০২২, ০২:৪৯ অপরাহ্ন

ফ্ল্যাটের সামনে সিঁড়িতে বসে ১০ দিন ১০ রাত কাটিয়ে অবশেষে নিজেদের ফ্ল্যাটে ঢুকতে পারলেন ভারতের নয়ডার বৃদ্ধ দম্পতি। নিজেদের ফ্ল্যাট থাকতেও সেই ফ্ল্যাটে ঢোকার জন্য আইনি লড়াইয়ে নামতে হয় তাদের। ফ্ল্যাটে ঢুকতে পেরে খুশি কুমার দম্পতি। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

কর্মসূত্রে মুম্বাইয়ে থাকতেন সুনীল কুমার এবং রাখী গুপ্ত। অবসরের পর নয়ডায় জীবন কাটানোর সিদ্ধান্ত নেন তারা। সেই মতো গ্রেটার নয়ডার সেক্টর ১৬বি-তে একটি ফ্ল্যাট কেনেন। তারা স্থির করেন, যত দিন না তারা নয়ডায় আসছেন, ততদিন ফ্ল্যাটটি ভাড়া দেবেন। একজন ভাড়াটেও পেয়ে যান। এক নারী এবং তার সন্তানকে ফ্ল্যাটটি ১১ মাসের জন্য ভাড়া দেন তারা।

সুনীলের দাবি, ১১ মাসের মেয়াদ শেষ হয়ে যাচ্ছে দেখে ভাড়াটেকে সতর্ক করেন তিনি। অন্য ফ্ল্যাট দেখার জন্য প্রস্তুতি নিতে বলেন। জুনের মধ্যে ঘর ছাড়ার কথা বলে নোটিস দেয়া হয় ভাড়াটেকে। তিনি সম্মতিও দেন। কিন্তু গত ২২ জুন হঠাৎই ভাড়াটে তাদের জানান যে, আর কয়েকটা দিন সময় চান তিনি। আপাতত একটি ঘর খালি করে দিচ্ছেন, সেই ঘরে সুনীলরা এসে থাকতে পারেন। কিন্তু এতে রাজি হননি রাখী। তিনি পাল্টা জানান, একটা ঘরে তাদের আসবাবপত্র ধরবে না। তাই গোটা ফ্ল্যাটটাই ছাড়তে হবে। এতে রাজি হয়ে যান ভাড়াটে।

কথামতো সুনীলরা ১৭ জুলাই মুম্বাই থেকে আসবাবপত্র নিয়ে রওনা দেন। ১৯ জুলাই নয়ডায় পৌঁছান। কিন্তু সেখানে পৌঁছেই তারা দেখেন, ভাড়াটে ফ্ল্যাট ছাড়েননি। কেন ছাড়েননি তা প্রশ্ন করতেই ভাড়াটে পাল্টা জানিয়ে দেয়, এখন তার পক্ষে ঘর ছাড়া সম্ভব নয়। তারপরই সুনীলরা সিদ্ধান্ত নেন, ফ্ল্যাট না ছাড়লে তারা ফ্ল্যাটের সামনে সিঁড়িতেই বসে থাকবেন। টানা ১০ দিন সিঁড়িতে কাটানোর পর অবশেষে আইনি সহযোগিতায় নিজেদের ফ্ল্যাট ফিরে পান তারা।

আরও পড়ুন