বৃহস্পতিবার, ৩০ Jun ২০২২, ০৯:৫৫ অপরাহ্ন

মাদ’কদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে করা মা’মলায় তৃতীয় দফায় রিমান্ড শেষে নায়িকা পরীমনিকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

পরীমনির জামিন আবেদন করেননি তার আইনজীবী। আদালতে শুনানির সময় পরীমনি তার আইনজীবী নীলাঞ্জনা রিফাত সুরভীসহ অন্যান্যদের সঙ্গে কথা বলেন।

এ সময় আইনজীবীদের ডেকে পরীমনি বলেন, আপনারা আমার জামিন চান না কেন? আমি তো পাগল হয়ে যাচ্ছি। আমার সঙ্গে আপনারা কী কথা বলবেন? আমি তো পাগল হয়ে যাব? আপনারা বুঝতেছেন আমার কী কষ্ট হচ্ছে?

এর আগে পরীমনির আইনজীবী মুজিবুর রহমান আদালতকে বলেন, আজকে আমরা জামিন শুনানি করছি না। আমরা একটা আবেদন জানাই, পরীমনির সঙ্গে কথা বলতে চাই। পাঁচ দিন চেষ্টা করেও তার সঙ্গে কথা বলতে পারিনি।

শনিবার (২১ আগস্ট) ঢাকা মহানগর হাকিম আশেক ইমামের আদালত পরীমনিকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

মা’মলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত পরীমনিকে কারাগারে আ’টক রাখার আবেদন করেন মা’মলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডি পু’লিশ পরিদর্শক কাজী গোলাম মোস্তফা। শুনানি শেষে এ আদেশ দেন আদালত।

এর আগে বৃহস্পতিবার (১৯ আগস্ট) তৃতীয় দফায় পরীমনির একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকা মহানগর হাকিম আতিকুল ইসলাম।

গত ৫ আগস্ট পরীমনির চারদিন ও ১০ আগস্ট দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। এ মা’মলায় গত ১৩ আগস্ট পরীমনিকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত। ওই দিন সন্ধ্যায় তাকে গাজীপুরের কাশিমপুর মহিলা কেন্দ্রীয় কারাগারে নেওয়া হয়।

এরপর ১৬ আগস্ট পরীমনির ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন মা’মলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির পু’লিশ পরিদর্শক কাজী গোলাম মোস্তফা। পরে আদালত বৃহস্পতিবার শুনানির দিন ধার্য করে এবং শুনানি শেষে পরীমনির একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

উল্লেখ্য, গত ৪ আগস্ট (বুধবার) পরীমনির বনানীর বাসায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ মা’দকদ্রব্যসহ পরীমনিকে আ’টক করে র‍্যাব। এ ঘটনায় পরের দিন র‌্যাব বাদী হয়ে বনানী থা’নায় পরীমনির বিরুদ্ধে মা’দকদ্রব্য আইনে মা’মলা করে।

আরও পড়ুন