সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৬:৫৬ পূর্বাহ্ন

চিত্রনায়িকা পরীমনিকে মুক্ত করতে উচ্চ আদালতে বিনা পয়সায় আইনি লড়াইয়ের ঘোষণা দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের বিশিষ্ট আইনজীবী অ্যাডভোকেট জেড আই খান পান্না। তার সঙ্গে থাকবেন সুপ্রিম কোর্টের একদল আইনজীবী। সম্প্রতি ফেসবুক পোস্টে অ্যাডভোকেট জেড আই খান পান্না লিখেন, ‘পরীমনির মা’মলা বিনা পারিশ্রমিকে করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। যারা সঙ্গে থাকতে চান, থাকবেন।’

এরপর গণমাধ্যমকে এই আইনজীবী বলেন, ‘পরীমনির পক্ষে বিনা পয়সায় আইনি লড়াই করব। আমার সঙ্গে একদল আইনজীবী থাকবেন। আইনজীবী দলে রয়েছেন- অ্যাডভোকেট মাক্কিয়া ফাতেমা ইসলাম, অ্যাডভোকেট জামিউল হক ফয়সাল, মাহরিন মাসুদ ভূঁইয়া, আয়েশা আক্তার, রোহানী সিদ্দিকা, রোহানী ফারুক খান, দেবজিৎ দেবনাথ, মশিউর রহমান রিয়াদ, মানবেন্দ্র রায় মণ্ডল, নাজমুস সাকিব, ইয়াসমিন ইতি প্রমুখ।’

পরীমনির বর্তমান আইনজীবী মুজিবর রহমানের সঙ্গে ইতিমধ্যেই কথা বলেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী জেড আই খান পান্না। আইনজীবী মুজিবর রহমান বলেন, ‘আজ সকালে উনার সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। উনি অনেক সিনিয়র একজন আইনজীবী। তার সঙ্গে আরও কয়েকজন আইনজীবী থাকবেন। আশা করি, সবাইকে নিয়ে আইনি লড়াইয়ে আমরা জয়ী হবো।’

এদিকে তিন দফা রি’মান্ড শেষে রোববার পরীমনিকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত। পরীমনিকে মু’ক্ত করতে আদালতে বর্তমানে লড়ছেন আইনজীবী মুজিবর রহমান ও তার দলের আট সদস্য। কিন্তু তারা বারবার আবেদন করলেও আদালত নায়িকার জামিন মঞ্জু’র করেননি।

এর আগে, অ্যাডভোকেট জেড আই খান পান্না বরগুনার বহুল আলোচিত রিফাত হ’ত্যা মা’মলার প্রধান সাক্ষী থেকে আসা’মি হওয়া মিন্নির পক্ষে আইনি লড়াই করে হাইকোর্ট থেকে তাকে জা’মিন করিয়েছিলেন।

প্রসঙ্গত, গত ৪ আগস্ট রাতে প্রায় ৪ ঘণ্টার অভিযান চালিয়ে বনানীর বাসা থেকে পরীমনি ও তার সহযোগীকে আট’ক করে র‍্যাব। এসময় তার বাসা থেকে বিভিন্ন ধরনের মা’দকদ্র’ব্য জব্দ করা হয় বলে জানানো হয়। আ’টকের পর তাদের নেওয়া হয় র‍্যাব সদর দফতরে। পরে র‍্যাব-১ বাদী হয়ে মা’দক আইনে পরীর বিরুদ্ধে মা’মলা করে। এরপর ৫ আগস্ট চার দিন এবং ১০ আগস্ট পরীমনির দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। ১৩ আগস্ট রিমান্ড শেষে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। গত ১৯ আগস্ট তৃতীয় দফায় এক দিনের রিমান্ড হয়। তিন দফা রিমান্ড শেষে তাকে কারাগারে রাখা হয়েছে।

আরও পড়ুন