বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৯:০০ পূর্বাহ্ন

জিনের বাদশার সঙ্গে দেখা করতে’ বাড়ি থেকে বেড়িয়ে যায় এক কিশোরী। পরে তার অভিভাবকরা বিষয়টি টের পান এবং পুলিশের শরণাপন্ন হন। এরপর পু’লিশের একটি চৌকস টিম অভিযান চালিয়ে রাত সাড়ে ১২টার দিকে বগুড়ার শাহজাহানপুর থা’না এলাকা থেকে কিশোরীকে উদ্ধার করা হয়।

একটি নাম্বার থেকে জিনের বাদশা পরিচয় দিয়ে মোবাইলে বলে, আমি জিনের বাদশা দরবেশ বাবা বলতেছি। তোর জন্যে একটা সুসংবাদ আছে। আল্লাহ তোর ভাগ্য খুইল্যা দিছে। তোকে স্বর্ণের চাক্কা দিবো। কোটিপতি বানাবো। আল্লাহ তোর ভাগ্যে রাখছে। তুই স্বর্ণপাতি পাবি। কোটিপতি হবি। তুই আমার কথামতো আমার নিকট চলে আয়। দাউদকান্দিতে চলে আয়। যদি না আসিস তাহলে তোর মা-বাবা, ভাই-বোন পরিবারের সবাইকে ধ্বংস করে দিবো। আর তুই যে আসবে কাউকে বলতে পারবে না। পিছনে ফিরে তাকাতে পারবে না।

এসব কথা শুনে কোটিপতি হওয়ার স্বপ্নে বিভোর হয়ে মেয়েটি স্বাভাবিক বিচারবিবেচনা হারায়। কাউকে কিছু না বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। পরে অভিভাবকরা পুলি’শের শরণাপন্ন হলে পুলি’শ ফুলপুর থেকে ময়মনসিংহ, টাঙ্গাইল ও সিরাজগঞ্জ হয়ে বগুড়ায় যায়। সেখানে শাহজাহানপুর থা’না এলাকায় দাউদকান্দিগামী রংপুরের একটি পরিবহন থেকে ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে।

ফুলপুর থা’নার ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, প্রথমে আমরা মনে করেছিলাম কোনো ছেলে তাকে ভাগিয়ে নিয়ে গেছে। কিন্তু তা নয়। কথিত জিনের বাদশার খপ্পরে পড়ে সে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। তার ভাগ্য ভালো। আমরা তাকে উদ্ধার করতে পেরেছি। হয়তো সে পাচার হয়ে যেতে পারতো। এখন তাকে তার পরিবারের হেফাজতে দিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ওসি আরো বলেন, আমরা কথিত জিনের বাদশার আস্তানা খুঁজে বের করার চেষ্টায় আছি। তবে ছেলে-মেয়েদেরকে এসব বিষয়ে আরও সচেতন হতে হবে। লোভ বর্জন করতে হবে।

আরও পড়ুন