বুধবার, ২৯ Jun ২০২২, ০৮:০৪ অপরাহ্ন

মাইনুল আহসান নোবেল বিভিন্ন সময় উদ্ভট মন্তব্যের জেরে অসংখ্য মানুষের অপছন্দের পাত্র হয়ে উঠেছেন। যতটা না আলোচিত হয়েছেন, তার চেয়ে বেশি সমালোচিত হয়েছেন তিনি। গতকাল বুধবার (২৫ আগস্ট) নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে একটি ছবি প্রকাশ করেন নোবেল। তাতে দেখা যাচ্ছে- দুর্গম পার্বত্য অঞ্চলের নাফাকুম জলপ্রপাতের পাশে এক নারীর সঙ্গে বসে আছেন নোবেল। তিনি ঠিক কী করছিলেন, সেটি একেবারে স্পষ্ট না হলেও গাঁ’জার কলকি টানছেন বলেই মনে করতে পারেন নেটাগরিকরা।

সেই ভাবনাকে আরও একধাপ এগিয়ে দিয়েছে ছবির ক্যাপশন। নোবেল লিখেছেন- ‘গাঁজার নৌকা পাহাড়তলী যায় ও মিরাবই…।’ তবে মেয়েটি কে, সে বিষয়ে কিছু জানাননি এই গায়ক। এদিকে তার এমন কা’ণ্ড দেখে মেজাজ ঠিক রাখতে পারেননি নোবেলের স্ত্রী সালসাবিল মাহমুদ। নিজের ফেসবুকে এই ছবিটিকে ইঙ্গিত করে প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন তিনি।

পু’লিশ কেন এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিচ্ছে না, এমন প্রশ্ন তুলে সালসাবিল বলেছেন, যদি এখানে ব্যবস্থা নেয়া না হয়, তাহলে যেন কোনো নে’শাগ্রস্তের বিরুদ্ধে পু’লিশ ব্যবস্থা না নেয়।

এদিকে ক্ষো’ভ প্রকাশ করে তিনি লিখেছেন, ‘বাংলাদেশ সরকার এবং বাংলাদেশ প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। আমি লজ্জিত এ রকম একটা দেশে জন্মগ্রহণ করে। অনুগ্রহপূর্বক বাংলাদেশ পু’লিশ বাহিনী যেন আজ থেকে কোনো নে’শাগ্রস্ত স্টুডেন্ট বা ব্যক্তিকে গ্রে’প্তার না করে অথবা শাস্তি না দেয়। আমাদের দেশের ইনফ্লুয়েন্সাররা যেখানে নিজেদের নে’শাগ্রস্ত ছবি আপলোড করে এটাকে একটি ট্রেন্ডে পরিণত করেছে এবং বাংলাদেশ প্রশাসন এ বিষয়ে কিছু করতে অক্ষম, সেখানে অন্য জনগণদের নেশা এবং মাদ’কদ্রব্য-সংক্রা’ন্ত বিষয়ে হেনস্তা করার অধিকার বাংলাদেশ পু’লিশ বাহিনী আর রাখে না।’

সেই স্ট্যাটাসে নি’র্যাতনের কথা উল্লেখ করে সালসাবিল লিখেছেন, ‘এমন একটি দেশে জন্মগ্রহণ করে সত্যি আমি লজ্জি’ত, যে দেশে নারী নির্যাতন ছেলে মানুষের পুরুষত্ব প্রমাণের মাপকাঠি। এমনকি যে দেশে একজন স্বামীর কাছে স্ত্রী নিরাপদ না। গোপনে ধারণকৃত পার্সোনাল মোমেন্টের ভিডিও দিয়ে স্ত্রীকে খুব সহজেই ব্ল্যাকমেইল করে রাখা যায় এবং তা সম্পর্কে বাংলাদেশ সাইবার ক্রা’ইমও অবহিত।’

এদিকে চিত্রনায়িকা পরীমণিকে কেন গ্রে’প্তার করা হয়েছে সেই প্রশ্ন তুলে তিনি লিখেছেন, ‘যে দেশে সম্মানিত ব্যক্তিগণ কিছু সাময়িক ফেইম অর্জন করা মানুষদের কোনোরকম চেকিং ছাড়াই এয়ারপোর্ট ক্রসিং-এর ব্যবস্থা করে দেয় এবং তারা নিজেদের ইচ্ছামতো ড্রাগস বাংলাদেশে নিয়ে আসে, সে দেশে পরীমণি কেন গ্রে’প্তার হবে? যদি কোনো গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির চোখে আমার এ স্ট্যাটাস পড়ে, দয়া করে উত্তর দিয়ে যাবেন।’

আরও পড়ুন