রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ০৭:৫০ পূর্বাহ্ন

আফগানিস্তান নিয়ে তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলু এবং যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্থনি ব্লিঙ্কেন ফোনে আলোচনা করেছেন।

নতুন খবর হচ্ছে, নয় বছর আগে ২০১২ সালে তালেবানের গু’লিতে মাথায় খুলির একটা অংশ হারিয়েছেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী মালালা ইউসুফজাই। তালেবানের ভ’য়াবহতার চি’হ্নস্বরূপ সেই খুলির অংশটি আজও নিজের কাছেই রেখে দিয়েছেন ২৪ বছর বয়সী মালালা।

সেই সময় মাত্র ১৫ বছর বয়স ছিল মালালার। অবশ্য মালালার সেই দিনের কোনো স্মৃতিই নেই। এ ব্যাপারে মালালা এক ব্লগ পোস্টে বলেছিলেন, আমার শরীরে একটি গু’লির ক্ষ’ত আর অনেক অ’স্ত্রোপচারের দাগ রয়েছে। কিন্তু সেদিনের কোনো স্মৃতিই আমার নেই। নয়বছর পরও আমার সবচেয়ে ভালো বন্ধু দুঃস্বপ্ন।

মেয়েদের শিক্ষার ব্যাপারে প্রচারণা চালানোর অপরাধে ২০১২ সালের অক্টোবরে পাকিস্তানের সোয়াত উপত্যকায় তালেবান সদস্যরা মালালার স্কুল বাসে উঠে তার মাথায় গু’লি ছোড়ে।

মালালা বলেন, চোখ খোলার পর বুঝেছিলাম আমি বেঁচে আছি। কিন্তু কোথায় আছি সেটা বুঝতে পারছিলাম না। আমার চারদিকে ছিল কয়েকজন অপরিচিত মানুষ। তারা ইংরেজিতে কথা বলছিল।

হাসপাতালের এক নার্সের কাছ থেকে আয়না চেয়ে নিজের মুখ দেখার পর চমকে উঠেন মালালা নিজের মুখের একটা অংশ শুধু চিনতে পারছিলেন তিনি।

তিনি বলেন, তার মাথার অর্ধেক অংশের চুল ফেলে দেওয়া হয়েছিল। মালালা ভেবেছিলেন এটা তালেবানের কাজ। কিন্তু নার্স তাকে বলেছিল চিকিৎসকরা অ’স্ত্রোপচারের জন্য অর্ধেক চুল ফেলে দিয়েছে।

পাকিস্তানের চিকিৎসকরা তার খুলির একটি অংশ অপসারণ করেছিলেন। সেই অংশটি আজও নিজের বইয়ের তাকে রেখে দিয়েছে মালালা। মাথায় সেই আঘাতের কারণে এখনো চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানেই থাকতে হয় মালালাকে।

মালালা জানান, তালেবান যখন আফগানিস্তানে লড়াই চালাচ্ছিল তখন তাদের দেওয়া ক্ষ’ত সারানোর জন্য ষষ্ঠবারের মতো অস্ত্রোপচার চলছিল তার।

আরও পড়ুন