বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৩:০৬ পূর্বাহ্ন

আফগানিস্তানে একটি অন্তর্ভুক্তিমূলক সরকার প্রতিষ্ঠায় সাহায্য করার সংকল্পের পুনরাবৃত্তি করে, পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা মঙ্গলবার আশাবাদ ব্যক্ত করে যে, প্রতিবেশী দেশ তালেবানদের দখলের পর ভারত পাকিস্তানের বিরুদ্ধে আফগান মাটি ব্যবহার করতে পারবে না।

মঙ্গলবার মন্ত্রিপরিষদ-বৈঠকের পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী বলেন, ‘নতুন আফগান কর্তৃপক্ষ একটি স্পষ্ট অবস্থান নিয়ে এসেছে এবং আমরা আশা করি তারা আফগানিস্তানের মাটি কোনো দেশের বিরুদ্ধে ব্যবহার করতে দেবে না এবং ভারতীয় অপচেষ্টা এবং পাকিস্তানের বিরুদ্ধে আফগান মাটি ব্যবহার করার জন্য তহবিল হ্রাস পাবে।’ তিনি বলেন, আফগানিস্তানকে সহায়তা প্রদানের জন্য খোলা এয়ার করিডর চালু থাকবে।

মন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন যে আফগানিস্তানের ‘২০ বছরের দুঃখের গল্প’ শেষ হবে এবং আফগানরা ‘স্বস্তির নিঃশ্বাস’ নিতে পারবে। ফলে পাকিস্তান একটি স্থিতিশীল প্রতিবেশীর সাথে তার সম্পর্ক জোরদার করতে সক্ষম হবে। ‘আফগান জনগণের জন্য আমাদের একটি বার্তা রয়েছে যে, আমরা আপনার শান্তি এবং স্থিতিশীলতার জন্য প্রার্থনা করি এবং ত্রাণ প্রদানের জন্য যা সম্ভব তা করব।’ চলমান প্রত্যাহার প্রক্রিয়ার আপডেট দিতে গিয়ে মন্ত্রী বলেন, বিশ্বজুড়ে পাকিস্তানের ভূমিকার প্রশংসা করা হচ্ছে এবং ‘আমরা প্রত্যাহার প্রক্রিয়ায় সাহায্য অব্যাহত রাখব।’ তিনি বলেন, প্রত্যাবাসন করতে ইচ্ছুক সকল পাকিস্তানিকে আফগানিস্তান থেকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

আফগানিস্তানে নতুন সরকারের স্বীকৃতি প্রসঙ্গে ফাওয়াদ চৌধুরী বলেন, পাকিস্তানের নীতি স্পষ্ট যে তারা কোনো বিচ্ছিন্ন সিদ্ধান্ত নেবে না। ‘নতুন আফগান শাসনকে স্বীকৃতি দেয়ার সিদ্ধান্তের আগে আন্তর্জাতিক এবং আঞ্চলিক মনোভাব বিবেচনা করা হবে।’ আফগান সীমান্তের ওপারে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর উপর সাম্প্রতিক হামলার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন. ‘সরকার বদল হওয়ার পরের দিনই পরিবর্তন হবে বলে মনে হয় না।’ সূত্র: ডন।

আরও পড়ুন