রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১২:৩৬ অপরাহ্ন

যশোরের শার্শায় পরকী’য়ার জেরে মনিরুজ্জামান নামে এক যুবককে পুড়িয়ে হ’ত্যার অভিযোগ উঠেছে এক নারীর বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় বিথি নামে এক নারীকে আট’ক করেছে পু’লিশ।

শুক্রবার দুপুরে শার্শার কাজিরবেড় গ্রামের একটি বাড়ি থেকে ম’রদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। হত্যাকা’ণ্ডের শিকার মনিরুজ্জামান যশোরের মনিরামপুর উপজেলার রাজগঞ্জ গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে।

আট’ক নারী ঝিনাইদহের পশ্চিম নারানপুর গ্রামের সাইদুর রহমানের স্ত্রী। বর্তমানে তিনি শার্শার কাজিরবেড় গ্রামের একটি ভাড়া বাড়িতে স্বামীর সঙ্গে থাকতেন।

ভাড়া বাড়ির মালিক সিরাজুল ইসলাম জানান, শুক্রবার ভোর রাতে হঠাৎ মানুষ পো’ড়ার গন্ধ পেয়ে বাড়ির নিচতলায় ছুটে যান। এ সময় তিনি মোটরসাইকেলের নিচে আগুনে পো’ড়া এক যুবকের লা’শ পড়ে থাকতে দেখেন। পরে নিচতলার ভাড়াটিয়া বিথিকে ডেকে ঘটনা সম্পর্কে জানতে চান। বিথি বিষয়টি সম্পর্কে জানেন না বলে জানালে সিরাজুল চাপ প্রয়োগ করতে থাকেন।

একপর্যায়ে ওই নারী স্বীকার করেন, ওই যুবকের সঙ্গে তার দীর্ঘদিনের পরকী’য়া সম্পর্ক ছিল। নানাভাবে সে তার সঙ্গে প্রতারণা করেছে। এতে প্রতিশোধ নিতে স্বামীর অনুপস্থিতিতে বাসায় ডেকে খাবারের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে অচেতন করেন। পরে ঘরের বারান্দায় থাকা মোটরসাইকেলে চাপা দিয়ে আগুন লাগিয়ে হ’ত্যা নিশ্চিত করেন।

পরে খবর পেয়ে পু’লিশ ঘটনাস্থল থেকে ওই যুবকের মরদেহ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় বিথিকে আ’টক করে থা’নায় নিয়ে যায় পু’লিশ।

জানা গেছে, কাজিরবেড় গ্রামের সিরাজুল ইসলামের বাড়ির নিচতলায় ঝিনাইদহের কালিগঞ্জ এলাকার সাইদুর রহমান স্ত্রী-সন্তান নিয়ে ভাড়া থাকতেন। সাইদুর রহমান একজন এনজিও কর্মী। ঘটনার রাতে তিনি বাড়িতে ছিলেন না। সাইদুর রহমানের স্ত্রী বিথী খাতুনের সঙ্গে নিহত লোকটির প্রেমের সম্পর্ক ছিল।

যশোরের নাভারণ সার্কেলের এএসপি জুয়েল ইমরান জানান, এ ঘটনায় অভিযুক্ত নারীকে আ’টক করে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। তবে প্রাথমিকভাবে বলা যায় পরকী’য়া সংক্রা’ন্ত বিষয়ে এ হ’ত্যাকা’ণ্ড ঘটেছে। বিস্তারিত তদন্ত শেষে প্রকাশ করা হবে।

আরও পড়ুন