বৃহস্পতিবার, ৩০ Jun ২০২২, ১১:১০ অপরাহ্ন

জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী আঁখি আলমগীর। বছরের বেশিরভাগ সময় তিনি ব্যস্ত থাকেন স্টেজ শো নিয়ে। কিন্তু গত প্রায় দুই বছরে করোনার কারণে স্টেজ শো প্রায় বন্ধই বলা চলে। এই সময়ে তিনি নিজেও সচেতন থাকতে বাসাতেই থেকেছেন বেশিরভাগ সময়। পাশাপাশি নতুন সব গানে কন্ঠ দিচ্ছেন। এছাড়াও আঁখি বিভিন্ন টিভি চ্যানেলের অনুষ্ঠানের শুটিংও করছেন। এরইমধ্যে ‘মখমল বাই আঁখি আলমগীর’ নামের একটি অনলাইন ব্র্যান্ডও চালু করেছেন এ শিল্পী। সব মিলিয়ে কেমন আছেন? দিনকাল কেমন কাটছে? উত্তরে আঁখি বলেন, ভালো আছি।

এই মহামারীতে যতটুকু সম্ভব সচেতন থাকার চেষ্টা করছি। ব্যস্ততা কি নিয়ে? এ গায়িকা বলেন, রেকর্ডিং ও টিভি অনুষ্ঠানে সময় দিচ্ছি। সম্প্রতি ফোক স্টেশনের জন্য জে কে মসলিশের সংগীতে ৬টি ফোক গান গেয়েছি। ফোক গান তেমন গাওয়া হয় না। এবার করলাম।

এরমধ্যে ‘আইসে দামান’ নামের গানটি দুদিন আগেই প্রকাশ হয়েছে। গানটি থেকে প্রত্যাশার চাইতে ভালো সাড়া মিলছে। এর বাইরে চলচ্চিত্রের গান করা হচ্ছে। স্টেজ তো বন্ধ দীর্ঘদিন যাবত। এরইমধ্যে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছেন শিল্পী-মিউজিশিয়ানরা।

এখান থেকে ঘুরে দাড়ানোটা কতটা চ্যালেঞ্জের বলে মনে করেন? উত্তরে আঁখি বলেন, সত্যি বলতে যারা শুধু স্টেজের ওপর নির্ভর তাদের অবস্থা অনেক খারাপ। এতটা সময় শো ছাড়া থাকতে হবে কেউই কল্পনা করেনি। সব কিছুই কিন্তু চলছে, শুধু স্টেজ বন্ধ।

এই পরিস্থিতি কবে ঠিক হবে সেটা আসলে জানা নেই। শিল্পী-মিউজিশিয়ানরা অনিশ্চয়তার মধ্যে রয়েছেন। করোনা পরিস্থিতি ঠিক না হওয়া পর্যন্ত এখান থেকে বের হবার পথও দেখছি না। তবে আমরা একে অপরের পাশে থাকতে পারি। কারণ সংগীত একটি পরিবার। পরিবারের সবার দেখভালের দ্বায়িত্ব আমাদের সবার। তবে এভাবেই বা কতদিন চলবে সেটাও প্রশ্ন। কারণ কাজের তো বিকল্প নেই।

‘মখমল বাই আাঁখী আলমগীর’ কেমন চলছে? এ গায়িকা বলেন, বেশ ভালো চলছে। অনেক সাড়া পাচ্ছি। আসলে খুব বেশিদিন হয়নি ব্র্যান্ডটি অনলাইনে চালু করেছি। এর জন্য ডিজাইন শুরু করেছি।

তবে অল্প সময়ে এখানকার পোশাক এতটা পছন্দ করবে ভাবিনি। এর ফলে উৎসাহটা আরও বেড়ে গেছে। সামনে আরও নতুন সব ডিজাইন নিয়ে সবার সামনে আসার পরিকল্পনা চলছে।

আরও পড়ুন