শনিবার, ০২ Jul ২০২২, ১১:০৮ অপরাহ্ন

ভোলা সদর উপজেলায় পারিবারিক কলহের জেরে মো. ফরহাদ হোসেন টিটব মুন্সী (৪৫) নামের এক ব্যক্তিকে হ’ত্যা করা হয়েছে। হ’ত্যাকা’ণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে নিহ’তের দ্বিতীয় স্ত্রী নূর নাহার বেগমকে র’ক্তাক্ত দাসহ গ্রে’প্তার করেছে পু’লিশ।

আজ রোববার ভোররাতে সদর উপজেলার আলীনগর ইউনিয়নের আট নম্বর ওয়ার্ড রুহিতা গ্রামের পন্ডিতের পোল এলাকায় শিহালী বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

নি’হত টিটব মুন্সী সদর উপজেলার উত্তর দিঘলদী ইউনিয়নের সাত নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা বেলায়েত হোসেন মুন্সীর ছেলে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন সদর মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) কবির হোসেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রতিদিনের মতো টিটব গতকাল রাতে আলীনগরে তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী নূর নাহার বেগমের বাড়িতে যান। সকালে স্থানীয়রা নূর নাহারকে ঘরের সামনে র’ক্তা’ক্ত দা হাতে নিয়ে বসে থাকতে দেখেন। পরে ৯৯৯-এর মাধ্যমে থা’নায় খবর দেয় তারা। পু’লিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘরের ভেতর মেঝে থেকে টিটবের র’ক্তা’ক্ত ম’হদেহ উদ্ধার করে। এ সময় স্ত্রী নূর নাহারকে আ’টক করা হয়।

স্থানীয়রা আরও জানান, টিটব মুন্সী ও তাঁর স্ত্রী নূর নাহার বেগমের সঙ্গে প্রায় সময়ই ঝগড়া-মা’রামারি ও হইচই হতো।

সদর মডেল থা’নার উপপরিদর্শক (এসআই) কবির হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, টিটব দীর্ঘদিন ধরে মা’দক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত ছিলেন। তাঁর নামে থা’নায় একাধিক মা’দক, হ’ত্যা, ও ডা’কাতির মা’মলা রয়েছে। তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী অনেকবার তাঁকে পু’লিশে ধরিয়েও দিয়েছিলেন।

এসআই কবির জানান, গতকাল শনিবার দিবাগত রাতে বাড়িতে স্ত্রীর সঙ্গে টিটবের পারিবারিক কলহের সৃষ্টি হয়। রাতে টিটব ঘুমিয়ে পড়েন। রাতের ঘটনায় ক্ষি’প্ত হয়ে স্ত্রী নূর নাহার ঘুমন্ত স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা করেন। তিনি হ’ত্যা করেই ক্ষান্ত হননি, টিটবের হাত-পা টুক’রো টুক’রো করে রান্না করার পাতিলে বোঝাই করেন।

এসআই আরও জানান, লা’শের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে। লা’শ ময়’নাতদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় মডেল থা’নায় একটি হ’ত্যা মা’মলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

টিটব মুন্সীর প্রথম স্ত্রী মাহামুদা বেগম তুহিনের সংসারে এক মেয়ে ও দুই ছেলে এবং দ্বিতীয় স্ত্রী নূর নাহার বেগমের সংসারে আট বছরের একটি ছেলে রয়েছে।

এদিকে স্ত্রীর হাতে স্বামী খু’নের ঘটনায় পুরো এলাকায় ব্যাপক চা’ঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

আরও পড়ুন