সোমবার, ০৪ Jul ২০২২, ১১:৪০ পূর্বাহ্ন

পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার রাধানগর ইউনিয়ন পরিষদের ৪,৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ডে জয় লাভ করেছেন শাহিনা বেগম। কলম প্রতীকে জয়লাভ করা এই নারী সদস্যকে নিয়ে আলোচনার অন্ত ছিলোনা। কারণ তিনি নির্বাচনী প্রচারণা করেছিলেন তার অপর দুই সতীনকে নিয়েই।

রোববার (২৮ নভেম্বর) রাতে আটোয়ারী উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং কর্মকর্তা শহিদুল আলম তাকে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করেন।

জানা গেছে, শাহিনা বেগম কলম প্রতীক নিয়ে ২ হাজার ৩৫২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তানজিনা বেগম তালগাছ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১ হাজার ৬৩৫ ভোট।

এদিকে প্রথম বারের মতো বড় সতীন শাহীনা বেগম সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ডের প্রথমবারের মতো সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় শাহিনার বাড়িতে বইছে আনন্দের জোয়ার। অন্যদিকে বড় সতীনের বিজয় অর্জনের বেশ খুশি তার শাহীনার মেজো সতিন আকলিমা আক্তার ও রত্না আক্তার।

তৃতীয় ধাপে রাধানগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তিনি কলম প্রতীক নিয়ে ভোটের মাঠে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন শাহীনা। রাত-দিন স্বামীসহ তিন সতীন ছুটে যান সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের বিভিন্ন গ্রাম ও পাড়া মহাল্লায়। বড় সতীনের জন্য অন্য দুই ছোট সতীন কলম প্রতীককে ভোট চেয়ে দোয়া ও সমর্থনের জন্য ভোটারদের বাড়ি বাড়ি যান৷ সাংসারিক বিভিন্ন সমস্যা মধ্যেও একসঙ্গে থাকায় এবার ইউনিয়ন নির্বাচনে একে অন্যের পাশে দাঁড়িয়েছেন শাহিনা বেগম, আকলিমা বেগম ও রত্না বেগম৷

এ বিষয়ে কথা হয় শাহীনার মেজো সতীন আকলিমা আক্তারের সাথে। তিনি বলেন, শাহিনা আমার বড় সতীন হলেও তিনি আমার বড় বোন। তিনি আজ নারী ইউপি সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন এতে আমি অনেক আনন্দিত। আমার বোন জনগণের সেবা করবে তাদের পাশে দাঁড়াবে এটাই বড় আনন্দ।

একই কথা বলেন শাহীনার ছোট সতীন রত্না আক্তার। তিনি বলেন, আমরা তিন সতীন বোনের মতো। শাহানা আপাকে ভোটে জেতাতে আমরা তিন জনে রাত দিন কাজ করেছি৷ আমি সবার কাছে দোয়া চাই আমার বড় সতীন যেন সবার সেবা করে পাশে দাঁড়াতে পারেন।

এ বিষয়ে শাহিনার স্বামী দেলওয়ার হোসাইন বলেন, আমার বড় বউ শাহীনাকে ভোটে জেতাতে আমিসহ আমার মেজো ও ছোট বউসহ যেভাবে পাশে ছিলাম ভবিষ্যতেও পাশে থাকবো আমরা।

আরও পড়ুন