রবিবার, ০৩ Jul ২০২২, ০২:৩৩ অপরাহ্ন

সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের মন্ত্রীত্ব ও আ’লীগের পদ হারানোর ঘটনায় অঝোরে কেঁদেছেন জামালপুরের একজ যুবলীগ নেতা। এমডি রানা সরকার নামে ওই যুবলীগ নেতার ১৫ মিনিটের ফেসবুক লাইভের ওই ভিডিও ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল।

মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে মাত্র ২২ ঘন্টার ব্যবধানে ওই ভিডিওতে লাইক পড়েছে ১৫ হাজার, কমেন্ট পড়েছে ৬ হাজার ৪০০, শেয়ার করেছেন ৭৪১ জন ও ভিডিওটি দেখেছেন প্রায় পৌনে দুই লাখ মানুষ।

এমডি রানা সরকার জামালপুরের সরিষাবাড়ি উপজেলা যুবলীগের সদস্য। তিনি নিজেকে মুরাদ হাসানের সক্রিয় কর্মী হিসেবেই পরিচয় তুলে ধরেছেন।

ওই ভিডিওটিতে তিনি বলেন, ‘প্রতিমন্ত্রী হওয়ার পর প্রতিমন্ত্রীর আশীর্বাদপুষ্ট হয়েছে আওয়ামী লীগের বহু নেতাকর্মী। দুঃসময়ের নেতাকর্মীরা মুরাদের কাছ থেকে কোনো সুবিধা নিতে না পারলেও অসংখ্য নতুন কর্মী বাগিয়ে নিয়েছেন বহু সুযোগ সুবিধা। তিনি বিভিন্ন সময় ভুল বক্তব্য দিতেন। পাশে থাকা সুবিধাভোগী তৈলবাজ নেতা-কর্মীরা ভুল ধরিয়ে দেয়ার পরিবর্তে আরও উৎসাহ দিয়েছে। ফলে ভুলভাল মন্তব্যে বার বার সমালোচিত হয়েছেন প্রতিমন্ত্রী (এখন আর পদে নেই)। আমার নেতা এখন সবই হারিয়েছে। তার এমন দুঃসময়ে বর্তমানে কোনো নেতাকর্মী তার পাশে নেই৷

নেতার জন্য দোয়া চেয়ে আবারও কান্নায় ভেঙে পড়েন রানা সরকার।

যুবলীগ নেতার আবেগ জড়ানো এই ভিডিও দেখে তাকে তোষামোদকারী উল্লেখ করে হাসি-তামাশায় মেতেছেন ফেসবুকাররা।

ফেসবুক লাইভে এসে কান্নাকাটি করার কারণ জানতে যুবলীগ নেতা রানা সরকারের মোবাইল নম্বরে যোগাযোগ করা হয়। প্রথমে তিনি ফোন রিসিভ করলেও পরে সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে লাইন কেটে দেন।

আরও পড়ুন