বৃহস্পতিবার, ৩০ Jun ২০২২, ১০:৫৭ অপরাহ্ন

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী এমএ হামিদের সমর্থক ছাত্রলীগ নেতা শাকিলকে পিটিয়ে হ’ত্যার অভিযোগ উঠেছে নৌকার প্রার্থী হুমায়ূন কবির মজুমদারের সমর্থক বাবুল গাজী মেম্বারের বিরুদ্ধে।

বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মাধবপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মা’রা যান। নিহত শাকিল উপজেলার পেরিয়া ইউনিয়নের আশারকোটা গ্রামের আবুল খায়েরের ছেলে। শুক্রবার লা’শ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায় থানা পুলিশ। এ ঘটনায় এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

স্থানীয় ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পঞ্চম ধাপের পেরিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিল নিয়ে পেরিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান এমএ হামিদ গত বুধবার রাত সাড়ে ৮টায় মাধবপুর গ্রামের কামালের গরুর খামারের সামনে পথসভা করেন।

এ সময় মাধবপুর গ্রামের ইউপি মেম্বার বাবুল গাজীর নেতৃত্বে ১৫-২০ জনের একটি সন্ত্রা’সী গ্রুপ দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে অতর্কিতভাবে পথসভায় হামলা করে। হামলায় শাকিলসহ ৫-৬ জন আহত হন। ওই সময় শাকিল উপজেলার জোড্ডা পূর্ব ইউনিয়নে পানকরা গ্রামের তার খালা রিনা বেগমের লা’শ দাফন করে আশারকোটা নিজ গ্রামে যাওয়ার পথে সন্ত্রা’সীদের হামলার শিকার হন।

আহতরা হলেন- মাহফুজ (৩২), ফরহাদ (২০), ফরিদ (২৫), মোহন (২৮), রুবেল (২৫)। সন্ত্রাসীরা শাকিলের মাথায় ও গায়ে কু’পিয়ে এবং এলোপাতাড়ি পিঠিয়ে গুরুতর আহত অবস্থায় পার্শ্ববর্তী খালে ফেলে দেয়। খবর পয়ে শাকিলের চাচা গোলাপ হোসেন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে রক্তা’ক্ত অবস্থায় খাল থেকে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। পরে তার অবস্থার অবনতি হলে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। অবস্থার অবনতি হলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথেই তার মৃ’ত্যু হয়।

নিহত শাকিলের পিতা আবুল খায়ের বলেন, সে এক মাস আগে ঢাকা থেকে ছুটিতে বাড়ি আসে। গত বুধবার রাত সাড়ে ৭টায় সে তার খালা রিনা বেগমের লাশ দাফন করে বাড়ি আসার পথে হামলার শিকার হয়। আমি ছেলে হ’ত্যার সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি।

আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী এমএ হামিদ বলেন, মাধবপুর গ্রামে আমার পথসভা চলাকালীন ইউপি মেম্বার বাবুল গাজীর নেতৃত্বে একটি সন্ত্রাসী গ্রুপ পূর্বপরিকল্পিতভাবে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে আমার পথসভায় হামলা করে। এ সময় হামলায় ৫-৬ জন আহত হন। আহতদের মধ্যে শাকিলের মৃ’ত্যু হয়। এ ব্যাপারে মাম’লার প্রস্তুতি চলছে।

অভিযুক্ত ইউপি মেম্বার বাবুল গাজীর মোবাইলে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

অন্যদিকে নৌকার প্রার্থী হুমায়ূন কবির মজুমদার বলেন, আমার সমর্থক অনেকেই থাকতে পারেন। তবে এ ঘটনার অপরাধীকে আইনের আওতায় আনার দাবি করছি।

এ বিষয়ে থা’নার ওসি ফারুক হোসেন বলেন, এ ব্যাপারে এখনো মাম’লা হয়নি। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে

আরও পড়ুন