শনিবার, ০২ Jul ২০২২, ০৫:০৭ পূর্বাহ্ন

ইমরান হাশমী। বলিউডে সিরিয়াল কিসার নামেই সর্বাধিক পরিচিত তিনি। ২০০৩ সালে ‘ফুটপাথ’ ছবির মাধ্যমে তার বলিউড যাত্রা শুরু। ২০০৪ সালে ‘মার্ডার’ছবির মাধ্যমে তুমুল জনপ্রিয়তা পান। দীর্ঘ ক্যারিয়ারে বহু নায়িকার সঙ্গে অন্তঃরঙ্গ দৃশ্যে দেখা গেছে ইমরানকে। মল্লিকা শেরাওয়াত, জ্যাকুলিন ফার্নান্ডেজ, তনুশ্রী দত্ত, নার্গিস ফাকরিসহ বহু নামী নায়িকাকে পর্দায় চুম্বন করেছেন তিনি।

‘আজহার’ চলচ্চিত্রে একসঙ্গে কাজ করেছিলেন নার্গিস ও ইমরান। সাবেক ভারতীয় অধিনায়ককে নিয়ে তৈরি এই বায়োপিকে সংগীতা বিজলানির চরিত্রে দেখা যায় নার্গিসকে। ছবিতে বেশ কয়েকটি কিসিং সিন ছিল। এমনই একটি দৃশ্যে নার্গিসকে চুম্বনরত ইমরান পরিচালক কাট বলার পরও থামেননি। ক্যামেরা বন্ধ হওয়ার পরও চুমু চলছিল।

২০১৬ সালে এই ছবির শুটিং করতে বিদেশে যান নার্গিস ও ইমরান। একটি গানের শুটিং করছিলেন তারা। গানটি ছিল বোল দো না জারা। লন্ডনের শীতে শুটিং করা হয়েছিল পুরো গানটির। প্রায় পাঁচটা কিসিং সিন ছিল নার্গিস ও ইমরানের। ওই গানের পর নার্গিস জানিয়েছিলেন, তিনি জানতেনই না যে একবার দুবার নয় পাঁচবার লিপলক করতে হবে ইমরানের সঙ্গে।

অভিনেত্রী বলেন, ‘পাঁচবার চুম্বনের কথা ছবির চুক্তিপত্রে ছিল না। আমি তো ভেবেছিলাম এক্সট্রা চার্জ করব পাঁচটা চুমুর জন্যে। আমি জানতাম ইমরান মনে মনে খুব খুশি হয়েছে। যদিও মুখে বলেছে ও কিছুই জানত না। আমি জানতাম ও মিথ্যা বলছে।’

নার্গিস জানান, গানটির শুট করার সময় পরিচালক অ্যাকশন বলার সঙ্গে সঙ্গেই ইমরান তাকে (নার্গিসকে) চুম্বন করতে শুরু করেন। তবে পরিচালক কাট বলার পর চুমু থামাননি নার্গিস। এতে হতবম্ভ হয়ে যান ‘চুম্বনসম্রাট’ ইমরানও। আসলে পুরো ঘটনাটাই মজা করেই করেছিলেন নার্গিস। যদিও ডার্টি পিকচারের সময় থেকে পর্দায় চুম্বনের দৃশ্যে করার বন্ধ করতে শুরু করেন ইমরান।

অভিনেতার ভাষ্য, তিনি পর্দায় চুম্বনে ক্লান্ত হয়ে গেছেন। ইমরান জানান, প্রতি ছবিতে প্রায় ২০ বার চুম্বন করতে হতো তাকে।

আরও পড়ুন