সোমবার, ০৪ Jul ২০২২, ০২:৪৬ পূর্বাহ্ন

অবশেষে পু’লিশের ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল (টিআরসি) পদে নিয়োগ পেয়েছেন বরিশালের হিজলার কথিত ‘ভূমিহীন’ কলেজছাত্রী আসপিয়া ইসলাম।

শনিবার (২৫ ডিসেম্বর) রাত ৮টার দিকে নিয়োগপত্র হাতে পেয়েছেন আসপিয়া ইসলাম। জেলা পু’লিশ সুপার স্বাক্ষরিত নিয়োগপত্র আসপিয়া ইসলাম-এর হাতে তুলে দিয়েছেন হিজলা থা’নার এসআই মো. মিজান।

বিষয়টি রবিবার (২৬ ডিসেম্বর) বিকালে সংবাদ মাধ্যমকে নিশ্চিত করেন আসপিয়া ইসলাম নিজেই।

নিয়োগপত্রে আগামী ২৮ ডিসেম্বর সকাল ১০টার মধ্যে তাঁকেসহ চূড়ান্ত নিয়োগ পাওয়া প্রার্থীদের প্রয়োজনীয় ব্যবহার্য সামগ্রী নিয়ে জেলা পুলিশ লাইনে উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে। সেখান থেকে রাজশাহীর সারদা পু’লিশ একাডেমিতে আনুষ্ঠানিকতা শেষে মহিলা টিআরসিদের ৬ মাসের প্রশিক্ষণের জন্য রংপুরে পাঠানো হবে বলে পু’লিশ সূত্র জানিয়েছে।

প্রসংগত, সাত স্তরের পরীক্ষায় পঞ্চম হয়ে উত্তীর্ণ হওয়ার পরও স্থায়ী ঠিকানা না থাকায় কলেজছাত্রী আসপিয়া ইসলাম-এর চাকরি হওয়া নিয়ে শঙ্কা দেখা দেয়। এতে মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন পিতৃহীন আসপিয়া ইসলাম ও তাঁর পরিবার। পরে গত ৮ ডিসেম্বর বরিশাল জেলা পু’লিশ লাইনের রেঞ্জ ডিআইজি এসএম আক্তারুজ্জামান-এর কাছে গিয়েছিলেন আসপিয়া ইসলাম। ডিআইজি আসপিয়া ইসলাম-এর প্রতি সমবেদনা জানালেও তাঁকে চাকরি দেওয়ার বিষয়ে কোনো প্রতিশ্রুতি দিতে পারেননি।

বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টিগোচর হয়। পরে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় আসপিয়া ইসলামকে জমিসহ ঘর এবং যোগ্যতা অনুযায়ী চাকরি দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেয় বলে জানান জেলা প্রশাসক জসীম উদ্দিন হায়দার।

গণমাধ্যমের অনুসন্ধানে আসপিয়া ইসলাম-এর পরিবারের দুই বিঘা জমির সন্ধান পায় ভোলার লালমোহনে তাদের মূল বাড়িতে। ওই জমি বর্গা দেওয়া রয়েছে বলেও জানান তার পরিবারের সদস্যরা। এই প্রতিবেদন প্রকাশের পর তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

স্বপ্নের চাকরির নিয়োগপত্র হাতে পাওয়ায় উৎফুল্ল আসপিয়া ইসলাম ও তাঁর পরিবার। বিশেষ করে তাঁর মা প্রধানমন্ত্রীসহ দেশবাসীকে ধন্যবাদ জানানোর পাশাপাশি আসপিয়াসহ সব সন্তানের জন্য দোয়া চেয়েছেন।

আরও পড়ুন