শুক্রবার, ০১ Jul ২০২২, ০১:৪০ পূর্বাহ্ন

রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার মৌরাট ইউনিয়নের মালঞ্চী গ্রামের ৩ সন্তানের জননীকে নিয়ে লাপাত্তা হয়েছে একই এলাকার তরুন আইনজীবী নিজাম উদ্দিন হায়দার নামের এক ব্যাক্তি। এর আগেও আইনজীবী নিজাম উদ্দিন রাজবাড়ী’র নারী আইনজীবীকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে প্রতারণা করেছিল বলে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে। জানা গেছে, রাজবাড়ী জেলা বারের এক আইনজীবীর বিরুদ্ধ প্রবাসীর স্ত্রীকে ফুঁসলিয়ে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ এনে আদালতে মামলা করা হয়েছে। মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে আদালত। ওই নারীর স্বামী মোক্তার বিশ্বাস রোববার (১৬ জানুয়ারি) রাজবাড়ীর ২নং আমলি আদালত ও রাজবাড়ীর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে অভিযুক্ত আইনজীবীর বিরুদ্ধে পৃথক দুটি মামলা করেন।

অভিযুক্ত আইনজীবীর নাম নিজাম হায়দার। তার বাড়ী রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলার মৌরাট ইউনিয়নের মালঞ্চী গ্রামে। আইনজীবী নিজাম হায়দার রাজবাড়ী বার এসোসিয়েশনের সদস্য। তার পিতা কৃষি ব্যাংকে কর্মরত। মামলায় পলাতক নিজাম হায়দারকে ১নং ও স্ত্রীকে ২নং আসামি করা হয়েছে। বাদী মোক্তার বিশ্বাস পাংশা উপজেলার মৌরাট ইউনিয়নের মালঞ্চী গ্রামের বাসিন্দা ও অভিযুক্ত আইনজীবী তার প্রতিবেশী।

মোক্তার বিশ্বাস অভিযোগ করেন, দীর্ঘদিন তিনি সৌদি আরবে ছিলেন। পাঁচ মাস আগে দেশে ফিরে তিনি তার টাকা পয়সা স্ত্রীর কাছে গচ্ছিত রাখেন। তিনি প্রবাসী হওয়ার সুযোগে নিজাম হায়দার তার স্ত্রীকে ফুঁসলিয়ে পরকীয়ার সম্পর্ক গড়ে তোলে। গত শুক্রবার দুপুরে নিজাম হায়দার তার স্ত্রীকে নিয়ে উধাও হয়। যাওয়ার সময় তার স্ত্রীর কাছে গাচ্ছিত নগদ চার লাখ ৬০ হাজার টাকা ও ছয়-সাত ভরি স্বর্ণালংকার নিয়ে যায়।বাদীর আইনজীবী এ্যাড. রফিকুল ইসলাম বলেন, রাজবাড়ী ২নং আমলি আদালতে ৪৯৮ ও ৩৮০ ধারায় দায়ের করা মামলায় আসামি নিজাম হায়দারের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা এবং অপর আসামির বিরুদ্ধে সমন জারি করেছেন আদালত।

অপর দিকে রাজবাড়ীর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দায়ের করা মামলায় আসামি নিজাম হায়দারের বিরুদ্ধে শোকজসহ ভিকটিমের বিরুদ্ধে সার্চ ওয়ারেন্ট জারি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত আইনজীবী নিজাম হায়দারের সাথে কথা বলার জন্য তার মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তা বন্ধ পাওয়া যায়।

আরও পড়ুন