সোমবার, ০৪ Jul ২০২২, ১১:১২ পূর্বাহ্ন

সন্তান জন্মদানে সারোগেসি পদ্ধতি বর্তমান সময়ে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। শুক্রবার রাতে নিজের ইনস্টাগ্রামে সারোগেসির মাধ্যমে মা হওয়ার খবর জানান প্রিয়াঙ্কা। এদিকে কয়েক মাস আগে, প্রীতি জিনতা এবং তার স্বামী জিন গুডেনাফ সারোগেসির মাধ্যমে যমজ সন্তানের বাবা-মা হয়েছেন।

শাহরুখ এবং গৌরি খানের কনিষ্ঠ পুত্র হোক বা করণ জোহরের যমজ সন্তান, সাম্প্রতিক অতীতে বেশ কয়েকজন সেলিব্রিটি সারোগেসির মাধ্যমে বাবা-মা হয়েছেন। তবে এই পদ্ধতি নিয়ে অনেকেই সমালোচনা করছেন। এবার লেখিকা তসলিমা নাসরিন এই সারোগেসি পদ্ধতি নিয়ে মুখ খুললেন। সারোগেসি পদ্ধতির সমালোচনা করে তিনি তার ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছেন।

তসলিমা বলেন- সারোগেসি বিজ্ঞানের চমৎকার একটা আবিস্কার বটে। তবে সারোগেসি ততদিন টিকে থাকবে, যতদিন সমাজে দারিদ্র টিকে থাকবে। দারিদ্র নেই তো সারোগেসি নেই। দরিদ্র মেয়েদের জরায়ু টাকার বিনিময়ে ন’মাসের জন্য ভাড়া নেয় ধনীরা। ধনী মেয়েরা কিন্তু তাদের জরায়ু কাউকে ভাড়া দেবে না।

কারণ গর্ভাবস্থায় জীবনের নানা ঝুঁকি থাকে, শিশুর জন্মের সময়ও থাকে ঝুঁকি। দরিদ্র না হলে কেউ এই ঝুঁকি নেয় না। গৃহহীন স্বজনহীন কোনও শিশুকে দত্তক নেওয়ার চেয়ে সারোগেসির মাধ্যমে ধনী এবং ব্যস্ত সেলিব্রিটিরা নিজের জিনসমেত একখানা রেডিমেড শিশু চায়। মানুষের ভেতরে এই সেলফিস জিনটি , এই নার্সিসিস্টিক ইগোটি বেশ আছে। এসবের উর্ধে উঠতে কেউ যে পারে না তা নয়, অনেকে গর্ভবতী হতে, সন্তান জন্ম দিতে সক্ষম হলেও সন্তান জন্ম না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।

সারোগেসিকে তখন মেনে নেবো যখন শুধু দরিদ্র নয়, ধনী মেয়েরাও সারোগেট মা হবে, টাকার বিনিময়ে নয়, সারোগেসিকে ভালোবেসে হবে। ঠিক যেমন বোরখাকে মেনে নেবো, যখন পুরুষেরা ভালোবেসে বোরখা পরবে। মেয়েদের পতিতালয়কে মেনে নেবো, যখন পুরুষেরা নিজেদের পতিতালয় গড়ে তুলবে, মুখে মেকআপ করে রাস্তায় ত্রিভঙ্গ দাঁড়িয়ে কুড়ি- পঁচিশ টাকা পেতে নারী-খদ্দেরের জন্য অপেক্ষা করবে।

তা না হলে সারোগেসি, বোরখা, পতিতাবৃত্তি রয়ে যাবে নারী এবং দরিদ্রকে এক্সপ্লয়টেশানের প্রতীক হিসেবে।

আরও পড়ুন