সোমবার, ০৪ Jul ২০২২, ০৯:৩৫ অপরাহ্ন

বিএনপি-জামায়াত জোটের কড়া সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিএনপি ক্ষমতায় থেকে দেশের অর্থ সম্পদ বিদেশে পাচার করে। আবার সেই অর্থ দিয়ে বিদেশে এখন লবিস্ট নিয়োগ করে দেশ বিরোধী কার্যকলাপ ও দেশের সুনাম ক্ষুন্ন করছে। বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) রাতে জাতীয় সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর সাধারণ আলোচনা ও অধিবেশনের সমাপনী ভাষণে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, এদের দেশের জনগণের প্রতি কোনো দায় নেই। এদের মধ্যে দেশপ্রেম নেই। তাই তারা দেশের অগ্রগতিকে থামিয়ে দেয়ার অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে। দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করে নানা চক্রান্ত করছে। বিএনপি দেশকে ধ্বংস করা, লুটপাট করা, জঙ্গিবাদ-সন্ত্রাস সৃষ্টি করা ছাড়া কিছুই দিতে পারেনি। কিন্তু দেশের জনগণের প্রতি আমার আস্থা ও বিশ্বাস আছে যে, কোনো অসত্য অপ্রপ্রচার ও মিথ্যাচারে দেশের জনগণ বিভ্রান্ত হবে না। দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবেই।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশকে ধ্বংস করতে বিএনপি লবিস্ট নিয়োগ করে যে বিপুল অর্থ খরচ করেছে তার হিসাব নেয়া হবে। দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, দেশ উন্নত হচ্ছে, এটা তাদের পছন্দ না। তারা শত শত কোটি টাকার বৈদেশিক মুদ্রা খরচ করে লবিস্ট নিয়োগ করে দেশের সর্বনাশ করছে। এত বিপুল অর্থ কোথায় থেকে আসল, বিদেশে খরচ হলো- এর জবাব ও ব্যাখ্যা বিএনপিকে দিতে হবে।

র‌্যাবের কিছু ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা আরোপ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যারা দেশে সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ, উগ্রবাদ দমনে অত্যন্ত সফল ও পারদর্শীতা দেখিয়েছে, অভিজ্ঞতার সঙ্গে মোকাবেলা করেছে- তারা এত খারাপ হয়ে গেল কেন? আমরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে দোষ দেই না। দেশের ভাবমূর্তি ধ্বংস করতে তারা শত শত কোটি টাকা খরচ করে লবিস্ট নিয়োগ করেছে বিএনপি।

এতো বিপুল সংখ্যেক অর্থ তারা কোথায় পেল। আর এটা তো বৈদেশিক মুদ্রা। যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষা, বঙ্গবন্ধুর খুনীদের বাঁচানো, নির্বাচনকে বানচাল ও প্রশ্নবিদ্ধ করা, দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য বিএনপি শত শত কোটি টাকা খরচ করে লবিস্ট নিয়োগ করে, কোনো ভালো কাজের জন্য নয়। এতো অর্থ বিএনপি কোথায় থেকে পেল, কীভাবে সেখানে গেল- এর জবাব একদিন বিএনপিকে দিতেই হবে।

আরও পড়ুন