শুক্রবার, ০১ Jul ২০২২, ০৭:১৪ অপরাহ্ন

নোয়াখালী-৪ আসনের এমপি মোহাম্মদ একরামুল করিম চৌধুরীকে জেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য পদ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

এবার জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক এই সাধারণ সম্পাদককে দলের প্রাথমিক সদস্য পদ থেকে চূড়ান্ত বহিষ্কারের জন্য কেন্দ্রীয় সভাপতির কাছে সুপারিশ পাঠাবে জেলা আওয়ামী লীগ। শনিবার (২৯ জানুয়ারি) বিকেলে নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয় একরামুলকে।

জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট শিহাব উদ্দিন শাহীন বিষয়টি নিশ্চিত করে গণমাধ্যমকে বলেন, বিগত ইউনিয়ন পরিষদ এবং পৌরসভা নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীদের বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ায় সভায় উপস্থিত জেলা আওয়ামী লীগের সদস্যের সর্বসম্মতিক্রমে এই সুপারিশের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। আগামীকাল এ সংক্রান্ত চিঠি আওয়ামী লীগ দলীয় সভানেত্রী/সাধারণ সম্পাদক বরাবরে পাঠানো হবে।

জেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক অধ্যক্ষ খায়রুল আনম চৌধুরী গণমাধ্যমকে বলেন, ১৬ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত পৌরসভা নির্বাচন ও চলমান ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীদের বিরোধিতা করার কারণে সাংসদ একরামুল করিম চৌধুরীকে দল থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। চূড়ান্ত বহিষ্কারের জন্য দলের সভাপতির কাছে প্রস্তাব পাঠানোর সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বুধবার নোয়াখালীর সুবর্ণচরের ৫ নম্বর চরজুবলী ইউনিয়নে একরামুল করিম চৌধুরী নিজেকে শেখ হাসিনার প্রতিনিধি দাবি করেন। এ সময় তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নৌকার প্রার্থী হানিফ চৌধুরীর বিরুদ্ধে অবস্থান নেন। তিনি নৌকায় ভোট না দিয়ে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্রপ্রার্থী সাইফুল্লাহ খসরুকে ভোট দিতে বলেন।

আনারস প্রতীকের পক্ষে স্লোগান দিয়ে এমপি একরাম স্বতন্ত্র প্রার্থীকে নিজের ছেলের মতো ভালোবাসেন বলে উল্লেখ করেন। তাঁকে বিজয়ী করতে প্রয়োজনে প্রতিপক্ষের (নৌকার) লোকজনের হাত কেটে রেখে দিতেও তাঁর সমর্থকদের নির্দেশ দেন।

এ নিয়ে তুমুল আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়। পরে আজ একরামুলকে বহিষ্কার ও অব্যাহতির সুপারিশ করে জেলা আওয়ামী লীগ।

আরও পড়ুন