সোমবার, ০৪ Jul ২০২২, ০৩:০৭ অপরাহ্ন

‘মা’ একটি ছোট্ট শব্দ। এই শব্দের মধ্যেই লুকিয়ে আছে পৃথিবীর সব মায়া, মমতা, অকৃত্রিম স্নেহ, আদর, নিঃস্বার্থ ভালোবাসার সব সুখের কথা। চাওয়া-পাওয়ার এই পৃথিবীতে বাবা-মায়ের ভালোবাসার সঙ্গে কোনো কিছুর তুলনা চলে না।

কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার ধামশ্রেণী ইউনিয়নের সুরিরডারা গ্রামে স্বামীহীন মহেছেনা বেওয়ার জন্য গৃহনির্মাণ করা করে দিয়েছে র‌্যাব-১৩ রংপুর। ওই অসহায় বৃদ্ধার কোনো বাসগৃহ না থাকায় তিনি ছেলের গোয়াল ঘরে আশ্রিত ছিলেন।

তিনি ওই গ্রামের ইমাম আলীর স্ত্রী। স্বামী তাকে ফেলে চলে যাওয়ার পর অসহায় জীবনযাপন করে আসছিলেন এ ষাটোর্ধ নারী।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, তাকে স্বামী ছেড়ে গেছেন প্রায় ছয় বছর আগে। এরপর দুই ছেলে নিয়ে স্বামীর বাড়িতেই বসবাস করছিলেন মহেছেনা। ৫-৬ মাস আগে বড় ছেলে দ্বিতীয় বিয়ে করে চলে যান অন্যত্র। সঙ্গে নিজের করা ঘরটি ভেঙে নিয়ে যান। অবশেষে গৃহহীন মহেছেনার আশ্রয় হয় ছোট ছেলের গোয়াল ঘরে গরুর সঙ্গে।

এই তীব্র শীতেও দশ বছর বয়সী নাতিসহ গরুর সঙ্গে একই ঘরে বসবাস করছেন ষাটোর্ধ মহেছেনা। মহেছেনার বাড়িতে গোয়াল ঘরের একদিকে একটি মাচা আর একদিকে শোয়ার বিছানা। মাঝখানের কোণায় গরু রাখার স্থান। গোবর-মূত্রের গন্ধ নিয়ে সেই ঘরেই বসবাস করছেন তিনি।

ছোট ছেলে বাড়িতে থাকলেও স্বল্প আয়ের কারণে মায়ের জন্য আলাদা ঘর তৈরি করে দেওয়ার সামর্থ্য নেই তার। বিকল্প ব্যবস্থা না থাকায় ছেলের গোয়াল ঘরেই আশ্রয় হয়েছে তার।

আরও পড়ুন