সোমবার, ০৪ Jul ২০২২, ০২:১১ পূর্বাহ্ন

কোটি টাকার ঋণ নবায়ন মঞ্জুরি বর্ধিত না করায় গলাচিপার অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড শাখায় সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার ও ম্যানেজার মো. নাজমুল হাসানকে মারধর করে লা’ঞ্ছিত করার অভিযোগ ওঠেছে ব্যবসায়ী আব্দুল্লাহ আল মামুন রাহাত চৌধুরীর বিরু’দ্ধে।

সোমবার ঘটনাটি ঘটেছে একটি ব্যাংকের গলাচিপা শাখার ব্যবস্থাপকের কক্ষে। খবর পেয়ে পু’লিশ ওই ব্যবসায়ী আ’টক করেছে। এ ঘটনায় গলাচিপা থা’নায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান গলাচিপা থা’নার ওসি এমআর শওকত আনোয়ার ইসলাম।

গলাচিপা অগ্রণী ব্যাংকের সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার ও শাখা ব্যবস্থাপক অভিযোগ করেন, সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পৌর এলাকার ব্যবসায়ী মেসার্স চৌধুরী ট্রেডলিংকের মালিক আব্দুল্লাহ আল মামুন রাহাত চৌধুরী ব্যাংকের ব্যবস্থাপকের কক্ষে বসেন। এ সময় তার পূর্বের করা ৬০ লাখ টাকার ঋণসহ আরও ৪০ লাখ টাকা মোট এক কোটি টাকার বর্ধিত ঋণ মঞ্জুরি না করায় ক্ষু’ব্ধ হন।

ব্যবস্থাপক আরও জানান, রাহাত চৌধুরীর আগের যে ৬০ লাখ টাকা ঋণ রয়েছে তার পরেও আরও ৪০ লাখ টাকার যে ঋণ বর্ধিত করতে চান তা তার জামানতে ঋণের আওতা বহির্ভূত। এ কথা শুনে ক্ষি’প্ত হয়ে রাহাত চৌধুরী শাখা ব্যবস্থাপক নাজমুলের জামার কলার ধরে মা’রধর করে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করতে থাকেন। একপর্যায়ে পেপার ওয়েটে দিয়ে টেবিলের গ্লাস ভাংচু’র ও কাগজপত্র ন’ষ্ট করেন।

এ সময় ব্যবস্থাপকের ডাক-চিৎকার শুনে ব্যাংকের অন্যান্য কর্মচারীরা ব্যবস্থাপককে উ’দ্ধার করে চিকিৎসার জন্য গলাচিপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। গলাচিপা থা’না পু’লিশ খবর পেয়ে ব্যাংকে গিয়ে সরেজমিন পরিদর্শন করে। এর আগেই অবস্থা বেগ’তিক দেখে রাহাত পালিয়ে যান।

ঘটনাস্থল পরিদর্শনকারী কর্মকর্তা গলাচিপা থা’নার এসআই জাহিদুল ইসলাম কবির বলেন, গলাচিপা অগ্রণী ব্যাংকের ব্যবস্থাপকের কক্ষ পরিদর্শন করে অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেছে। রাহাত চৌধুরী এর আগেও ২০১৫ সালে গলাচিপা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা মো. আলতাফ হোসেনকেও (বর্তমানে অবসরে) লা’ঞ্ছিত করেছিলেন। তার বাবা প্রভাবশালী হওয়ায় ওই সময় ঘটনা আপস মী’মাংসা হয়েছিল।

এ প্রসঙ্গে গলাচিপা থা’নার ওসি এমআর শওকত আনোয়ার ইসলাম বলেন, ঘটনার পরপরই অগ্রণী ব্যাংকের ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। অভিযুক্ত মেসার্স চৌধুরী ট্রেড লিংকের মালিক আব্দুল্লাহ আল মামুন রাহাত চৌধুরীকে আ’টক করা হয়েছে। এ ঘটনায় মা’ম’লার প্রস্তুতি চলছে।

আরও পড়ুন