সোমবার, ০৪ Jul ২০২২, ০৫:৫৩ অপরাহ্ন

নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার একরামপুর ইস্পাহানী মাঝি গল্লী এলাকায় টিকটকের জন্য ভিডিও শুটিং শেষে ধ’র্ষণের শিকার হয়েছেন এক মাদ্রাসাছাত্রী। ওই মাদ্রাসাছাত্রীর প্রেমিক তাকে ধ’র্ষণ করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় স্থানীয়রা তিনজনকে আটক করে পুলিশের সোপর্দ করেছে। বৃহস্পতিবার (৩ ফেব্রুয়ারি) ধ’র্ষণ মামলার পর তাদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়। তবে পলাতক রয়েছে মূল আসামি। তাদের সবার বয়স ১৮ বছরের নিচে। এর আগে বুধবার (২ ফেব্রুয়ারি) রাতে ওই এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগীর নানি বাদী হয়ে পাঁচজনের নাম উল্লেখসহ আরও তিনজনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে বন্দর থানায় নারী ও শিশু নি’র্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন।

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, বুধবার (২ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে টিকটক ভিডিও করার জন্য কিশোরীকে তার নানির বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায় প্রেমিকসহ ৫ টিকটকার। কলাগাছিয়া ইউনিয়নের সাবদী এলাকায় তারা রাত পর্যন্ত টিকটক ভিডিও শুটিং করে। পরে মাদরাসাছাত্রীকে রাত সাড়ে ৯টার দিকে ইস্পাহানী মাঝির গল্লী এলাকার নির্জন স্থানে নিয়ে কথিত প্রেমিক ধ’র্ষণ করে।

তিনি আরও জানান, ধ’র্ষণের সময় কথিত প্রেমিকের চার সহযোগী ঘটনাস্থল পাহারা দেয়। এ সময় এলাকাবাসী ধ’র্ষণের বিষয়টি বুঝতে পেরে তিন সহযোগীকে আটক করে।

এ সময় কৌশলে প্রেমিক ও আরেকজন পালিয়ে যায়।

আরও পড়ুন