বৃহস্পতিবার, ০৭ Jul ২০২২, ০২:১৩ অপরাহ্ন

১৯৪৪ এবং ২০১৪ সালের পর ক্রাইমিয়ার তাতার মুসলিমরা আবার রয়েছে বাসস্থান হারানোর শঙ্কায়। রাশিয়া-ইউক্রেনের উত্তেজনা ক্রমেই বাড়ছে আর, যুদ্ধ পরিস্থিতির শঙ্কায় দিন কাটছে তাতার মুসলিমদের। আবারও মাতৃভূমি ছাড়তে হবে কিনা, তা নিয়ে তাতারদের মনে দেখা দিয়েছে পরিচিত শঙ্কা।

আল জাজিরার সাথে আলাপচারিতায় ৫৩ বছর বয়সী ইরফান কুদুসভ জানান, তিনি ক্রাইমিয়া থেকে নির্বাসিত ছিলেন। ২০ বছর বয়সে তিনি মধ্য এশিয়া থেকে অন্য অনেক তাতারের মতো ক্রাইমিয়ায় ফেরেন। সেদিনের স্মৃতিচারণ করে ইরফান বলেন, সে বড় সুখের এক দিন! বয়স্ক মানুষেরা প্লেন থেকে নেমে মাটিতে চুমো খাচ্ছিলেন। মাতৃভূমিতে ফেরার আনন্দে কাঁদছিলাম আমরা।

তবে ২০১৪ সালে রাশিয়া যখন দখল করে নেয় ক্রাইমিয়া, পরিস্থিতি যায় পাল্টে। আবারও মাতৃভূমি ছাড়তে বাধ্য হয় ইরফানসহ ১০ হাজার তাতার। এরপর ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভে বিখ্যাত একটি ক্রাইমিয়ান তাতার রেস্টুরেন্ট খোলেন ইরফান। কিন্তু এখন তাদের দুয়ারে কড়া নাড়ছে নতুন এক বিপদের শঙ্কা। ইউক্রেন সীমান্তে মোতায়েন করা হয়েছে ১ লাখ রাশিয়ান সৈন্য।

যেকোনো সময় রাশিয়া দেশটিতে সামরিক আগ্রাসন চালাতে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দেশগুলো। যুদ্ধ শুরু হলে সেটা অবধারিতভাবেই কেবল রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে না। এতে অনিবার্যভাবে জড়িয়ে পড়বে পশ্চিমারাও। তাই নিজেদের নিরাপত্তা নিয়ে নতুন ঝুঁকিতে পড়েছে তাতার জনগোষ্ঠীর মানুষ। যুদ্ধ পরিস্থিতিতে ইউক্রেনের খারসন বা কিয়েভে বসবাসরত তাতারদের সামনে আবারও বাসস্থান হারানোর শঙ্কা।

আরও পড়ুন