বুধবার, ২৯ Jun ২০২২, ০৭:৩৭ অপরাহ্ন

দক্ষিণ ভারতের কর্নাটকে হিজাব ইস্যুতে সারা ভারতের অবস্থা বেশ উত্তপ্ত। সম্প্রতি ভারতের সর্বোচ্চ আদালত পর্যন্ত এই ব্যাপারে তাদের অবস্থান জানিয়েছে। এছাড়া কর্নাটক রাজ্যের উচ্চ আদালত সহ রাজ্যের সরকার ধর্মীয় ইস্যু ও পোশাকের ব্যাপারে কট্টর অবস্থান নিয়েছে।

এরমাঝেই মুসলিম রাজনৈতিক সংগঠন মজলিসে ইত্তেহাদুল মুসলেমিন বা এআইএমআই এর কেন্দ্রীয় সভাপতি এবং হায়দ্রাবাদের লোকসভা এমপি আসাদউদ্দিন ওয়াসি বলেছেন, ভবিষ্যতে এমন একদিন আসবে যেদিন নাকি একজন হিজাবী নারীই হবে ভারতবর্ষের প্রধানমন্ত্রী।

আজ (১৩ ফেব্রুয়ারি) ভারতের উত্তর প্রদেশে এক র‌্যালিতে অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন । তিনি আরো বলেন, হিজাবী নারীরা ম্যাজিস্ট্রেট হবে, চিকিৎসক হবে, এমনকি একদিন ভারতবর্ষের প্রধানমন্ত্রী পর্যন্ত হতে পারেন বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি। কর্ণাটকে হিজাব নিয়ে যা হচ্ছে তা দেশের সংবিধানের চরম লঙ্ঘন। এই ধরণের আচরণ সংবিধানের ১৫, ১৯ ও ২১ ধারার পরিপন্থী বলেও দাবী করেন এই মুসলিম নেতা। এছাড়া ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকারের এধরণের সিদ্ধান্তের কড়া সমলোচনা ও তীব্র নিন্দা জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) ভারতের কর্ণাটক উচ্চ আদালতের জারি করা রুল অনুযায়ী, আদালতের চূড়ান্ত রায় না দেয়া পর্যন্ত কোন শিক্ষার্থীই ধর্মীয় পোশাক পড়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আসতে পারবে না বলে জানানো হয়। হোক তা গেরুয়া ওড়না কিংবা বোরকা।

আরও পড়ুন