শুক্রবার, ১৩ মে ২০২২, ০৯:৩৩ পূর্বাহ্ন

কক্সবাজারের চকরিয়ায় চাঞ্চল্যকর সড়ক দুর্ঘটনায় পিকআপ চাপায় পাঁচ ভাইকে হত্যার অভিযোগে ঢাকায় র‍্যাবের হাতে আটক হওয়া চালক সাহিদুল ইসলাম ওরফে সাইফুলকে ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

রবিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে হাইওয়ে পুলিশ আটক সাইফুলকে চকরিয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও মালুমঘাট হাইওয়ে পুলিশের এসআই আবুল হোসেন। শুনানি শেষে বিচারক তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন বলে জানিয়েছেন মালুমঘাট হাইওয়ে পুলিশের ইনচার্জ শাফায়াত হোসেন।

শাফায়াত হোসেন বলেন, চকরিয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রাজীব কুমার দেবের পিক-আপের চালক সাইফুলকে হাজির করা হয়। ঘটনার মূল রহস্য জানতে সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। বিজ্ঞ বিচারক তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

এদিকে, সড়ক দুর্ঘটনায় ৫ ভাই নিহতের ঘটনায় পিকআপ চালক সাহিদুল ইসলাম ওরফে সাইফুলকে গত শুক্রবার রাত পৌনে ১টার দিকে ঢাকা মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে আটক করেছে র‌্যাব। গত পনের দিন আগে মারা যাওয়া সুরেশ চন্দ্র শীলের শ্রাদ্ধ অনুষ্ঠানের পূজা করতে গিয়ে ফেরার পথে গাড়ি চাপায় নিহত হন পাঁচ ভাই। গত ৮ ফেব্রুয়ারি ভোরে কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মালুমঘাট এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, ডুলাহাজারা ইউনিয়নের ১নম্বর ওয়ার্ডস্থ হাসিনা পাড়া এলাকার মৃত সুরেশ চন্দ্র শীলের ছেলে অনুপম শীল (৪৬), নিরুপম শীল (৪০), দীপক শীল (৩৫), চম্পক শীল (৩০) ও স্মরণ শীল (৩৬)। এসময় আহত হন সুরেশ চন্দ্রের আরও দুই ছেলে ও এক মেয়ে।

পিকআপ চাপায় নিহত ৫ ভাইদের বেঁচে যাওয়া মারাত্মক আহত দুই ভাই-বোন পৃথক দুটি হাসপাতালে বেডে কাতরাচ্ছেন। তৎমধ্যে গুরুতর আহত রক্তিম শীল জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে আইসিইউতে রয়েছেন। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তার জ্ঞান ফেরানোর লক্ষে নিউরো, মেডিসিন, আইসিইউ, অর্থোপেডিক ও রেসপেরিটরি পাঁচটি বিভাগের সমন্বয়ে চিকিৎসাসেবা চালাচ্ছেন বলে নিশ্চিত করেছেন তার ভগ্নিপতি সাংবাদিক খগেশপ্রতি চন্দ্র।

অপর আহত হীরা শীল ডুলাহাজারা মালুমঘাট মেমোরিয়াল খ্রিষ্টান হাসপাতালে তার একটি পা অস্ত্রোপচারের পরে কেবিনে রয়েছে।

নিহতদের বোন ও সাংবাদিক খগেশ চন্দ্রের স্ত্রী মুন্নি শীল ভাগ্যক্রমে এই দুর্ঘটনা থেকে প্রাণে বেঁচে যান। তার দাবী, রহস্যজনক কারণে তার পরিবারের উপর এমন ঘটনা ঘটান পিকআপ চালক। যদিও সংবাদ সম্মেলনে কুয়াশা ও দ্রুতগতির কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে দাবি করেছেন চালাক। এরপর নিহতদের পরিবারের অভিযোগ খতিয়ে দেখতেই চালককে রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন ইন্সপেক্টর শাফায়াত হোসেন

আরও পড়ুন