সোমবার, ০৪ Jul ২০২২, ০৩:১৩ অপরাহ্ন

আজ (১৪ ফেব্রুয়ারি) বর্তমান নির্বাচন কমিশনের বিদায়ী সংবাদ সম্মেলনে ভোটগ্রহণে অনিয়ম, দিনের ভোট রাতে হওয়া- এসব বিষয়ে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা বলেছেন, ‘রাতে ভোট হওয়ার খবর সত্য নয়। দিনের ভোট রাতে হলে প্রার্থীরা আদালতে যেতেন। কিন্তু কোনো প্রার্থী আদালতে যাননি। এতেই প্রমাণিত হয় বিষয়টি অসত্য।’ দায়িত্ব পালনকালে নিজের কোনো ব্যর্থতা নেই বলে এ সময় দাবি করেন বিদায়ী প্রধান নির্বাচন কমিশন কে এম নুরুল হুদা।

তিনি বলেন, গত ৫ বছর নির্বাচন কমিশন সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করেছে। ইভিএমে ভোটগ্রহণ কমিশনের বড় সাফল্য। আইনের মাধ্যমে নির্বাচনকে সবার কাছে গ্রহণযোগ্য করে তোলার চেষ্টা ছিল।

নুরুল হুদা বলেন, দায়িত্ব পালনে অনেক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হয়েছে। তারপরেও সফলভাবে দায়িত্ব পালনের চেষ্টা করেছি। তবে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে কিছু ভুল হয়েছে। শতভাগ সফলতা অর্জন করতে পারেনি। নির্বাচনে অনেক প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে, যা নিয়ন্ত্রণ করা যায়নি।

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন নানান ধরনের কাজ করেছে। কিছু কিছু কাজে আমরা সফল হইনি। কারণ, করোনার কারণে গত দুই বছর আমরা পিছিয়ে গেছি। তারপরও আমাদের চেষ্টা ছিল।

সিইসি বলেন, বর্তমান নির্বাচন কমিশন ৫ বছরে রাষ্ট্রপতি, জাতীয় সংসদ, জাতীয় সংসদের উপনির্বাচন এবং সকল স্থানীয় সরকার পরিষদের সাধারণ ও উপনির্বাচনসহ ৬ হাজার ৬৯০টি নির্বাচন অনুষ্ঠান করেছে।

আজ বর্তমান নির্বাচন কমিশনের বিদায়ী সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচন কমিশনার মো. রফিকুল ইসলাম, কবিতা খানম, অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ ও যুগ্ম সচিব এস এম আসাদুজ্জমান উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি কে এম নুরুল হুদাকে প্রধান নির্বাচন কমশিনার (সিইসি) করে পাঁচ সদস্যের কমিশন নিয়োগ দেওয়া হয়। এরপর ওই বছরের ১৫ ফেব্রুয়ারি দায়িত্ব নেন তারা। দীর্ঘ ৫ বছর দায়িত্ব পালনের পর আজ সোমবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) তাদের মেয়াদ শেষ হচ্ছে।

আরও পড়ুন