সোমবার, ০৪ Jul ২০২২, ০২:১৩ পূর্বাহ্ন

পাবনার চাটমোহরে এক শিক্ষার্থীকে পরপর ৩ ডোজ ভ্যাকসিন দেয়ার অভিযোগ উঠেছে।

সোমবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে চাটমোহর উপজেলা হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে। পরে বিষয়টি জানাজানি হলেও এ ব্যাপারে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি কর্তৃপক্ষ। ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর মা মঙ্গলবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে গিয়ে বিষয়টি জানিয়েছেন।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী ইভা খাতুন (১৪) চাটমোহর উপজেলার পার্শ্বডাঙ্গা ইউনিয়ন টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

ভুক্তভোগী ও তার পরিবার সূত্রে জানা গেছে, সোমবার সকাল থেকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শিক্ষার্থীদের টিকা দান কার্যক্রম শুরু হয়। বেলা ১১ টার দিকে ইভা টিকা নিতে হাসপাতালে প্রবেশ করেন। টিকাদান কার্যক্রমের
দায়িত্বে থাকা এক নার্স অন্য একজনের সাথে কথা বলতে বলতে ইভাকে পরপর ৩ ডোজ ভ্যাকসিন দেন। এতে ইভা কাঁদতে শুরু করলেও তাকে কোনো চিকিৎসা, সান্ত্বনা বা কোনো ধরনের মানসিক সাপোর্ট দেননি ওই নার্স। পরে নিরুপায় হয়ে সে বাড়ি ফিরে যায় সে। সেই রাত থেকেই জ্বর শুরু হয় তার।

ইভার মা মোছা. আতিয়ারা খাতুন অভিযোগ করে বলেন, আমার মেয়েকে পর পর ৩ ডোজ ভ্যাকসিন দেয়া হয়েছে। এতে আমার মেয়ে কিছুটা অসুস্থ হয়ে পড়েছে। বিষয়টি জানানোর জন্য মঙ্গলবার হাসপাতালে গেলে আমার কথা কেউই শোনেননি। হাসপাতালের লোকজন উল্টো খারাপ আচরণ করেন আমার সাথে। এমনকি কর্মস্থলে পাওয়া যায়নি উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকেও। মেয়েকে নিয়ে খুবই দুশ্চিন্তায় আছি। বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানিয়েছি। উনি আগামী বুধবার যেতে বলেছেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. ওমর ফারুক বুলবুল বলেন, এমনটা হবার কথা নয়। আমি আজ (১৫ ফেব্রুয়ারি) কর্মস্থলে নেই। বুধবার ওই শিক্ষার্থীর মাকে আসতে বলেছি। তার অভিযোগ নিয়ে তদন্ত করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সৈকত ইসলাম বলেন, বিষয়টি আমাকে জানানো হয়েছে। কিন্তু এটা কিভাবে সম্ভব!স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে এ বিষয়ে দেখতে বলেছি। আগামী বুধবার তাদের আসতে বলেছি। বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হবে বলে জানান তিনি।

আরও পড়ুন