রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ০৩:৫৭ পূর্বাহ্ন

চিত্রনায়িকা পরীমনির সহকর্মী কস্টিউম জিজাইনার জুনায়েদ করিম জিমিকে গুলশান থেকে আট’ক করা হয়েছে। আজ শুক্রবার তাকে আ’টক করে মহানগর গোয়েন্দা পু’লিশ। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে ডিবি কার্যালয়ে রাখা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

জুন মাসে ঢাকা বোট ক্লাবে পরীমনিকে ধ’র্ষ’ণ ও হ’ত্যাচে’ষ্টার ঘটনার সময় এ চিত্রনায়িকার সফর সঙ্গী ছিলেন কস্টিউম জিজাইনার জুনায়েদ করিম জিমি। তখনই গণমাধ্যমে তার নাম আলোচনায় আসে। ওই সময়ে পরীমনির বনানীর বাসায় সংবাদ সম্মেলনের সময়ও জিমিকে উপস্থিত রাখা হয়। পরে তিনিও গণমাধ্যমে তার বক্তব্য তুলে ধরেন। এ ছাড়া পরীমনির সঙ্গে বিভিন্ন ক্লাবে সফর সঙ্গী হিসেবে থাকতেন এই জিমি।

এর আগে গত বুধবার রাতে বাসা থেকে আ’টকের প্রায় ২৪ ঘণ্টা পর গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পরীমনিকে পু’লিশে হস্তান্তর করে র‌্যাব। তার বিরুদ্ধে বনানী থা’নায় করা হয় মা’দকদ্রব্য আইনে মা’মলা। এরপর রাতেই পরীমনিকে ঢাকার আদালতে পাঠিয়ে দেয় পু’লিশ। তাকে সাত দিন হেফাজতে রেখে জি’জ্ঞাসাবাদের আবেদন করেন মাম’লার তদন্ত কর্মকর্তা বনানী থা’নার পরিদর্শক সোহেল রানা।

শুনানি শেষে ঢাকার মহানগর হাকিম মো. মামুনুর রশিদ চার দিন রিমা’ন্ডের আদেশ দেন। অর্থাৎ পুলিশ এই কয়দিন এই চিত্রনায়িকাকে তাদের হেফাজতে রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করবে। পরীমনির পক্ষে তার আ’ইনজীবীরা রিমান্ড বাতিল করে জামিনের আবেদন জানালেও তা নাকচ করে দেন বিচারক। পরীমনির সঙ্গে মা’মলার আসা’মি তার সহযোগী আশরাফুল ইসলাম দীপুকেও জি’জ্ঞাসাবাদের জন্য চার দিনের হেফাজতে পেয়েছে পু’লিশ।

গ্রে’প্তার চলচ্চিত্র প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজ এবং তার ব্যবস্থাপক সবুজ আলীকেও র‌্যাবের করা আলাদা মা’দক মা’মলায় হেফাজতে নিয়ে জি’জ্ঞাসাবাদ করবে পু’লিশ। তাদেরও চার দিন রিমান্ডের আদেশ দিয়েছেন মহানগর হাকিম মামুনুর রশিদ। ওই মা’মলাটিও তদন্ত করছেন পু’লিশ পরিদর্শক সোহেল রানা। – কালের কন্ঠ

আরও পড়ুন