শনিবার, ১৪ মে ২০২২, ০২:৪১ পূর্বাহ্ন

চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণ উপজেলায় প্রেমিকের আত্মহত্যার বিষয় মেনে নিতে না পেরে প্রেমিকাও আত্মহত্যা করেছে। নিহত খালিদ হাসান (১৯) বারগাঁও গ্রামের আলমগীর হোসেন বেপারীর ছেলে ও জমিলা খাতুন (১৬) একই বাড়ির জহিরুল ইসলাম বেপারীর মেয়ে। সম্পর্কে তারা চাচা ভাতিজী। বৃহস্পতিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৫টায় বারগাঁও গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, প্রেমিক-প্রেমিকা দুজনে একই মাদ্রাসায় পড়াশোনা করত। প্রায় একই সময়ে মাদ্রাসায় যাওয়া-আসা ও কথাবার্তা হওয়ার সুবাদে এক বছর আগে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিষয়টি উভয় পরিবার এক মাস আগে জানলে তারা এতে বাধা দেয়। মূলত তারা দুজন সম্পর্কে চাচা-ভাতিজি। এ কারণে উভয়ের পরিবার বিষয়টি মেনে নেয়নি। এলাকাবাসী আরও জানায়, দুই পরিবার প্রেমের বিষয়টি মেনে না নেওয়ায় প্রেমিক গত ২৭ জানুয়ারি আত্মহত্যা করে। কিন্তু তার (প্রেমিকের) পরিবার স্বাভাবিক মৃত্যু বলে মরদেহ দাফন করে ফেলে। তার মৃত্যুর ২১ দিন পর প্রেমিকা নিজ ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

নিহতের বাবা জহিরুল ইসলাম বলেন, আমি এবং তার মা পারিবারিক প্রয়োজনে আশ্বিনপুর বাজারে গিয়েছিলাম। সেখানে যাওয়ার কিছুক্ষণ পর মোবাইলের মাধ্যমে জানতে পারে তার মেয়ে আত্মহত্যা করেছে।

মতলব দক্ষিণ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহিউদ্দিন মিয়া বলেন, সংবাদ পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

আরও পড়ুন