শুক্রবার, ০১ Jul ২০২২, ০৭:২০ অপরাহ্ন

এবার চলন্ত ট্রেনে যাত্রীর সঙ্গে বাগ’বিতণ্ডার এক পর্যায়ে নিজের প্যা’ন্টের চে’ইন খুলে অ’শালীন অ’ঙ্গভ’ঙ্গি করেছেন রেলওয়ে পুলিশের এক সদস্য। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নজরে আসার পর তাকে প্রত্যা’হার করা হয়েছে। তদন্ত করে তার বি’রুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। গত ১৮ জুন ভোরে ঢাকা থেকে পঞ্চগড়গামী ট্রেন ‘দ্রুতযান এক্সপ্রেসে’ এক যাত্রীর টিকিট না কাটাকে কেন্দ্র করে বাগ’বিতণ্ডার এক পর্যায়ে এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে বিভাগীয় ব্যবস্থার মুখে পড়া পুলিশ সদস্য পার্বতীপুর রেলওয়ে থানায় অ্যাসিস্ট্যান্ট টাউন সাব-ইন্সপেক্টর (এটিএসআই) পদে কর্মরত ছিলেন। তার নাম মাইদুল ইসলাম। থানা থেকে তাকে প্রত্যাহার করে সৈয়দপুর পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে। রেলওয়ে পুলিশের প্রধান অতিরিক্ত আইজি দিদার আহম্মদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘ট্রেনটি পাবনার ভাঙ্গুরা দিয়ে যাওয়ার সময় এ ঘটনা ঘটে। পুলিশের ওই সদস্যকে দায়িত্ব থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। তাকে সৈয়দপুর পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।’

এদিকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এই ঘটনার ২৭ সেকেন্ডের একটি ভিডিও ক্লিপ ছড়িয়ে পড়েছে। যাতে দেখা যায় কয়েকজন যাত্রী উপস্থিত পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশে চিৎকার করছেন। যা’ত্রীরা চিৎ’কার করার সময় পো’শাকধারী একজন পুলিশ সদস্য নিজের প্যা’ন্টের চেই’ন খুলে’ কিছু একটা বলছেন। কী বলছেন তা ভি’ডিওতে স্প’ষ্ট শোনা যায় না। পুলিশ সদস্যের এমন আচ’রণে আরও ক্ষু’ব্ধ হন উপস্থিত যাত্রীরা।

যিনি ভিডিও করছিলেন, তার বক্তব্য শোনা যায় ভিডিওতে। তিনি বলছিলেন, ‘পুলিশ আমার ফোন কেড়ে নিছে। আমার আইফোন, দেড় লাখ টাকা দামের ফোন, আবার চেইন খুলে দেখায়। কত বড় সা’হস। আমার ফোন কেড়ে নিছে এত লোক সাক্ষী, এটা নাটোরের ট্রেন, দ্রুতযান এক্সপ্রেস, এটা দিনাজপুরের ট্রেন, দ্রুতযান এক্সপ্রেস। পুলিশ আমার টাকা খাইতেছে’

এ বিষয়ে সৈয়দপুর রেলওয়ে পুলিশের সুপার সিদ্দিকী তানজিলুর রহমান বলেন, ‘দ্রুতযান ট্রেন ঢাকা থেকে ছেড়ে পাবনার ভাঙ্গুরা আসার পর টিকিট না কাটায় এক যাত্রীর সঙ্গে টিটির কথা-কাটাকাটি হয়। পরিস্থিতি সামলাতে ট্রেনে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্যদের ডেকে আনেন টিটি। পুলিশ এসে টিটির পক্ষ নিয়ে যাত্রীদের ধমকাধমকি করেন। একপর্যায়ে এটিএসআই মাইদুল অ’শ্লীল আ’চরণ করেন। আমরা তাকে প্রত্যা’হার করে ব্যবস্থা নিচ্ছি।’

আরও পড়ুন