বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১২:৩২ পূর্বাহ্ন

চিত্রনায়িকা পরীমনির বিরুদ্ধে মা’দকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে দায়ের করা মা’মলায় তিনি এখন চার দিনের রিমান্ডে। এই মা’মলায় অভিযোগ প্রমাণিত হলে সর্বোচ্চ পাঁচ বছর কারাদণ্ড হতে পারে। এমনকি অর্থদ’ণ্ডও হতে পারে। তবে রিমান্ড শেষে অন্য মাম’লায় দোষী সাব্যস্ত হলে সাজা আরও বাড়বে।

বুধবার বিকেলে

কিছু অভিযোগের ভিত্তিতে পরীমনির বাসায় অভিযান চালানো হয়। অভিযানে বিপুল পরিমাণ বিদেশি ম’দসহ উদ্ধার করা হয় ভ’য়ংকর মাদক লাইসার্জিক অ্যাসিড ডাইইথ্যালামাইড (এলএসডি) এবং আইস।

এ ঘটনায় গ্রে’ফতার পরীমনি ও তার সহযোগী আশরাফুল ইসলাম দীপুর বিরুদ্ধে বনানী থা’নায় মা’দকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা দায়ের করেছে র‍্যাব। মামলার এজাহার অনুযায়ী, তার বাসা থেকে সর্বমোট প্রায় ২ লাখ ১১ হাজার ৫০০ টাকার মাদকদ্রব্য জব্দ করেছে র‍্যাব। এর মধ্যে শুধুমাত্র মদই উদ্ধার করা হয়েছে ১ লাখ ৬৬ হাজার ৫০০ টাকা মূল্যের।

এজাহারে বলা হয়, বনানীর ১৯/এ সড়কের ওই বাড়ির ৫ম তলায় বিপুল পরিমাণ মা’দক মজুদ আছে এমন গোপন তথ্যের ভিত্তিতে অভিযানে যায় র‍্যাব। এরপর ওই বাসা থেকে পরীমনি ও দীপুকে আ’টক করা হয়। পরে তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের তথ্য ও দেখানো মতে ১৯ বিভিন্ন বিদেশি ব্র্যান্ডের বিদেশি মদ জব্দ করা হয়। যার পরিমাণ ১৮ দশমিক ৫ লিটার। প্রতি লিটার বিদেশি মদের আনুমানিক মূল্য ৯ হাজার টাকা হিসেবে এসব মদের মোট দাম ১ লাখ ৬৬ হাজার ৫০০ টাকা।

বুধবার বিকেলে র‍্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে পরীমনির বনানীর বাসায় অভিযানে যান ফোর্সটির গোয়েন্দা দলের সদস্যরা। প্রায় চার ঘণ্টার অভিযানে তাকে আ’টক করে র‍্যাব। এ সময় তার বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মা’দক উদ্ধার করা হয়। পরে তাকে র‌্যাব সদর দফতরে নেয়া হয়।

আরও পড়ুন