বৃহস্পতিবার, ১৮ অগাস্ট ২০২২, ০১:১৫ অপরাহ্ন

উজানের ঢল ও ভারি বর্ষণের ফলে দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার পাশ দিয়ে প্রবাহিত হওয়া আত্রাই নদীর পানি বাড়ছে। এতে প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কায় নদী তীরবর্তী কয়েকটি গ্রাম। হঠাৎ পানি ঢুকে পড়ায় পাট, ধানসহ শাক-সবজির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে এবং এতে দুচিন্তাগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন নদী পাড়ের পরিবারগুলো।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী আবু হোরায়রা বাদল জানিয়েছেন, আত্রাই নদীর পানি বিপৎসীমার ৪২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। রাতে বৃষ্টি হলে নদীর পানি আরো বৃদ্ধি পাবে। গত কয়েকদিনের চেয়ে পানির পরিমাণ বৃদ্ধি পাচ্ছে।

নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় উপজেলার চাকিনীয়া ঠুটির ঘাট, শুড়িগাঁও, আগ্রা দুপরঘাট, আশার ডাঙ্গা, গুলিয়ারা শিবতলা, জোয়ার, কালীরবাজার, কায়েমপুর, জোয়ার, নেউলা,গোবিন্দপুরসহ কয়েকটি এলাকায় নদী ভাঙন শুরু হয়েছে ও বসত বাড়িতে পানি ঢুকতে শুরু করেছে। এতে নির্ঘুমভাবে রাত কাটাচ্ছেন আত্রাই নদী তীরবর্তী এলাকা ও নিম্নাঞ্চলের মানুষ।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা এনামুল হাসান বলেন, নদীর পাড়ের মানুষের সার্বক্ষণিক খোঁজ-খবর নেয়া হচ্ছে ও পরিস্থিতি মোকাবিলায় সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া রয়েছে।

চিনিরবন্দর উপজেলার ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এটিএম সুজাউদ্দিন শাহ লুহিন জানান, নদীর পানি বাড়লে প্রতি বছরই তীরবর্তী মানুষেরা দুচিন্তায় দিন কাটায়। এজন্য আত্রাই নদীতে স্থায়ী বাঁধ নির্মাণে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি প্রয়োজন। এতে জান-মালের ক্ষতির পরিমাণ কমবে।

এদিকে পানিবন্দি এসব এলাকা পরিদর্শন করেছেন নব-নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সফিউল আযম চৌধুরী লায়ন, প্রশাসনের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও স্বেচ্ছাসেবকরা।

আরও পড়ুন