সোমবার, ০৪ Jul ২০২২, ১২:১৬ অপরাহ্ন

বরগুনার তালতলীতে স্ত্রীর অধিকার আদায়ে চেয়ারম্যানের বাড়িতে আমরণ অনশনে বসেছেন এক তরুণী। উপজেলার নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান দুলাল ফরাজীর বাড়ির সামনে অনশনে বসেছেন ওই তরুণী।

তরুণীর দাবি, চেয়াম্যানের ছোট ভাই জলিল ফরাজীর ছেলে রাকিব ফরাজি তার স্বামী। স্ত্রী হিসেবে মেনে না নিলে আত্মহত্যার হুমকি দিয়েছেন ওই তরুণী।

জানা গেছে, শুক্রবার (৬ আগস্ট) বেলা ১১টা থেকে অনশন করছেন তিনি। অনশন শুরুর পর থেকে চেয়ারম্যান দুলাল ফরাজী তার পরিবার বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র চলে গেছেন বলে জানা গেছে। তাদের পক্ষ থেকে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। এরপর থেকে তিনি সকল প্রকার যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছেন।

অনশনরত তরুণী বলেন, নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান দুলাল ফরাজীর ভাই জলিল ফরাজীর ছেলে রাকিবের সঙ্গে তার এক বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। বিয়ের আশ্বাসে রাকিব তার সাথে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্কও করেছেন। এরপর বারবার আশ্বাস দিয়েও বিয়ে না করে তার সঙ্গে সকল প্রকার যোগাযোগ বন্ধ করে দেন। পাশাপাশি বাড়াবাড়ি না করার জন্য পরিবারের সদস্যদের দিয়ে হুমকি দিতে থাকে।

তরুণী জানান, তিনি তালতলী থানায় ধর্ষণ মামলার প্রস্তুতি নিতে গেলে চেয়ারম্যান দুলাল ফরাজীর মধ্যস্থতায় বিয়েতে রাজি হন রাকিব। এরপর ১৮ জুলাই (সোমবার) উপজেলা পরিষদের সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান দেলোয়ারা হামিদ, থানার একজন নারী পুলিশ কর্মকর্তাসহ উভয় পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতে তিন লক্ষ টাকা কাবিনে তাদের বিয়ে হয়।

ভূক্তভোগী তরুণী বলেন, ‘আমি আমার স্বামীকে চাই। স্ত্রীর মর্যাদা নিয়ে শ্বশুরবাড়িতে থাকতে চাই।

আরও পড়ুন