সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ১০:২৩ পূর্বাহ্ন

বৃহস্পতিবারই নিজের নতুন জীবনসঙ্গীর কথা ঘোষণা করেছেন ৫৮ বছর বয়সী আইপিএলের প্রাক্তন চেয়ারম্যান ললিত মোদী। ব্যক্তিগত জীবনকে আগে কখনও প্রকাশ্যে আনেননি। কিন্তু বৃহস্পতিবার টুইটারে তাঁর নতুন জীবনসঙ্গীকে প্রকাশ্যে এনে সকলকে চমকে দিয়েছেন।

প্রাক্তন মিস ইউনিভার্স সুস্মিতা সেনের সঙ্গে তাঁর প্রণয়ের কথা প্রকাশ্যে এনেছেন টুইটারের মাধ্যমে। সেখানে সুস্মিতা সেনের সঙ্গে ছবি দিয়ে ‘নতুন জীবন’ শুরু করার কথা ঘোষণা করেছেন ললিত। ললিত লিখেছেন, ‘পরিবারের সঙ্গে মলদ্বীপ এবং সার্ডিনিয়ায় বেড়িয়ে লন্ডনে এলাম। আমার বেটার হাফ সুস্মিতা সেনের কথা উল্লেখ না করলেই নয়। শেষ পর্যন্ত নতুন জীবনের শুরু। দুর্দান্ত উপভোগ করছি।’

সুস্মিতা সেনকে নিয়ে তাঁর ভালবাসার কাহিনি প্রকাশ্যে আনলেও ললিতের প্রথম স্ত্রী এবং বিবাহিত জীবন কখনও প্রকাশ্যে আনেননি। ফলে তাঁর প্রথম স্ত্রীকে নিয়ে বিশেষ হইচইও হয়নি কোনও দিন। ললিতের প্রথম স্ত্রীর নাম মিনাল। ১৯৯১ সালের ১৭ অক্টোবর মুম্বইয়ে তাঁদের বিয়ে হয়। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে ২০১৮ সালের ১০ ডিসেম্বর ৬৪ বছর বয়সে মিনালের মৃত্যু হয়। ১৯৫৪ সালে নাইজেরিয়ায় সিন্ধি-ইন্দো পরিবারে জন্ম মিনালের।

মিনালের প্রথম বিয়ে হয় সৌদি আরবের ধনী ব্যক্তি জ্যাক সাগরানির সঙ্গে। কর্মসূত্রে তাঁকে নাইজেরিয়া থেকে লন্ডন যাতায়াত করতে হত। পরে সৌদি আরবেই পাকাপাকি ভাবে কাজ শুরু করেন। এই সময় একটি দুর্নীতিতে নাম জড়িয়ে যাওয়ায় সাত মাসের জেল হয় জ্যাকের। তখন অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন মিনাল। জ্যাকের সঙ্গে তাঁর দেখা হওয়ার কোনও সুযোগ ছিল না। অন্তঃসত্ত্বা অবস্থাতেই মিনাল লন্ডনে চলে আসেন। সেখানে মেয়ে করিমার জন্ম দেন।

এর পর মিনাল দিল্লিতে চলে আসেন। বিভিন্ন সূত্র মারফত জানা যায় যে, দিল্লিতে আসার পর ললিত মোদীর মা বীণার সঙ্গে মিনালের বন্ধুত্ব হয়। সেই সুবাদে ললিতের সঙ্গে তাঁর প্রায়ই দেখা-সাক্ষাৎ হত। মিনালের থেকে দশ বছরের ছোট ছিলেন ললিত। ধীরে ধীরে তাঁদের মধ্যে সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এরপরই ললিত-মিলান মুম্বইয়ে চলে আসেন। ১৯৯১ সালে বিয়ে করেন তাঁরা। সে সময় দু’জনের বয়সের ফারাক চর্চার বিষয় হয়ে উঠেছিল।

ললিত-মিনালের দুই সন্তান। ১৯৯৩ সালে মেয়ে আলিয়ার জন্ম হয়। ১৯৯৪ সালে ছেলে রুচির জন্ম হয়। কয়েক বছর পরই ললিতের সঙ্গে লন্ডনে পাড়ি দেন মিনাল। লন্ডনে থাকাকালীনই মিনালের ক্যানসার ধরা পড়ে। এক বছর ক্যানসারের সঙ্গে যোঝার পর ২০১৮-তে মৃত্যু হয় মিনালের। সুত্র: আনন্দবাজার।

আরও পড়ুন