সোমবার, ০৪ Jul ২০২২, ০৯:৪৫ অপরাহ্ন

মানিকগঞ্জে ডাকাত সর্দার পুত্রের সঙ্গে বিয়েতে অসম্মতি জানায় এক কিশোরী। এতে ডাকাত সর্দারের ভ’য়ে ওই কিশোরীর বাবা তার মেয়েকে কেটে নদীতে ভাসিয়ে দেওয়ার হু’মকি দেয়। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনা ঘটেছে জেলার শিবালয় উপজেলার তেওতা যমুনা নদীর দুর্গম আলোকদিয়ার চরে।

সোমবার দুপুরে এ ঘটনার খবর পেয়ে শিবালয় থা’না পু’লিশ ও উপজেলা প্রশাসন ছুটে যায় ঘটনাস্থল আলোকদিয়ার চরে। পরে প্রশাসনের হ’স্তক্ষেপে বাল্য বিয়ের হাত থেকে রক্ষা পায় ওই কিশোরী।

জানা যায়, শিবালয়ের তেওতা আলোকদিয়া চরের কু’খ্যাত ডা’কাত সর্দার জুলহাস মোল্লার বিবাহিত ছেলে সোলায়মান এর সঙ্গে একই গ্রামের মোদী মোল্লার স্কুলপড়ুয়া মেয়ের বিয়ের কথা হয়। কিশোরী ওই বিয়েতে অস’ম্মতি জানায়। এতে ডা’কাত সর্দারের ভয়ে কিশোরীর বাবা তার মেয়েকে কেটে নদীতে ভাসিয়ে দেওয়ার হু’মকি দেয়। বিষয়টি এলাকায় ছড়িয়ে পরলে স্থানীয়রা প্রশাসনকে অবহিত করেন।

শিবালয় থা’নার ওসি মো. ফিরোজ কবির বলেন, কিশোরীর ইচ্ছার বিরু’দ্ধে বিয়ের আয়োজন করার খবরে উপজেলা নির্বার্হী কর্মকর্তাসহ থা’নার অফিসার-ফোর্স নিয়ে সোমবার দুর্গম আলোকদিয়া চরে মোদী মোল্লার বাড়িতে যাই। মোদী মোল্লা ও তার কিশোরী মেয়েকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে ঘটনার সত্যতা পাওয়া যায়।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেসমিন সুলতানা জানান, কিশোরীর ১৮ বছর পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত কোথায়ও তাকে বিয়ে দেবে না মর্মে মুচলেকা আদায় করা হয় মোদী মোল্লার কাছ থেকে। এ সময় স্থানীয় তেওতা ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বারসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

গত কয়েক মাস আগে ডা’কাত সর্দার জুলহাস তার পুত্রবধূকে আ’গুনে পুড়িয়ে হ’ত্যা করে। পুনরায় ছেলেকে বিয়ের জন্য এ কিশোরীর বাবা চাপ প্রয়োগ করেন। ডা’কাতের ভয়ে মোদী মোল্লা তার অপ্রাপ্ত মেয়েকে বিয়ের জন্য রাজি হয়ে যায়। সোমবার রাতে ওই বিয়ে হওয়ার কথা ছিলো। প্রশাসনের হ’স্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পান ওই কিশোরী। – ডেইলি বাংলাদেশ

আরও পড়ুন