শুক্রবার, ১৯ অগাস্ট ২০২২, ০৫:১৫ পূর্বাহ্ন

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে যুবলীগ নেতার ওপর হা’মলার পর আ’গ্নেয়া’স্ত্র হাতে ছবি ভা’ইরাল হওয়া সেই মনিরুজ্জামান জুয়েলকে গ্রে’প্তার করেছে পুলিশ। রবিবার রাতে তাকে রাজধানীর বনানী থেকে গ্রে’প্তার করা হয়েছে বলে জানান চৌদ্দগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শুভ রঞ্জন চাকমা।

জু’য়েলের বিরুদ্ধে আগের তিনটি মামলায় আ’দালতের গ্রে’প্তারি পরোয়ানা রয়েছে। ওই তিনটি মা’মলায় গ্রে’প্তার দেখিয়ে সোমবার দুপুরে তাকে আদালতে প্রেরণ করে পুলিশ।

এ সময় জুয়েলের জামিনের আবেদন করেন তার আইনজীবীরা। শুনানি শেষে তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে আদালত তাঁকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন। মনিরুজ্জামান জুয়েল উপজেলার নালঘর গ্রামে প্রয়াত আলী আকবর মজুমদারের ছেলে।

গত বৃহস্পতিবার বিকেল চৌদ্দগ্রাম উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ও উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান শাহজালাল মজুমদারের ওপর স’ন্ত্রাসী হা’মলা চালানোর অভিযোগ উঠে জুয়েলের বিরুদ্ধে। শাহজালাল মজুমদারের দাবি, মনিরুজ্জামান জুয়েলের নেতৃত্বে অত্যাধুনিক আগ্নে’য়াস্ত্র নিয়ে তার ওপর হা’মলা চালিয়েছে একদল স’ন্ত্রাসী। হামলার ঘটনার পর জুয়েলের হাতে থাকা আ’গ্নেয়া’স্ত্রের দুটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যকে ভাই’রাল হয়েছে। এ ঘটনায় শনিবার বিকেলে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন শাহজালাল মজুমদার।

সোমবার বিকেলে ওসি শুভ রঞ্জন চাকমা বলেন, তিনটি মা’মলায় আদালতের গ্রে’প্তারি পরোয়ানা থাকা মনিরুজ্জামান জুয়েলকে রবিবার রাত ১০টার দিকে রাজধানীর বনানী থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সোমবার তাকে আদালতে প্রেরণ করলে বিজ্ঞ বিচারক তাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছেন। আর চেয়ারম্যান শাহজালাল মজুমদারের দায়ের করা অভিযোগটি তদন্ত করে দেখছে পুলিশ।

এদিকে ছবি ভাইরাল হওয়ার পর জুয়েলের সেই আ’গ্নেয়া’স্ত্র ৮৬ রাউন্ড গুলিসহ গত শুক্রবার রাত ১২টার দিকে চৌদ্দগ্রাম থানায় জমা দেন তার স্ত্রী ফারজানা হক। এ বিষয়ে ওসি বলেন, ‘ভাইরাল হওয়া অ’স্ত্রটির লা’সেন্স আছে। দেখতে অনেকটা সামরিক বাহিনীর অ’স্ত্রের মতো হলেও এটি একটি টু পয়েন্ট টু বোরের রাইফেল, যার মডেল হচ্ছে জিএসজি-৫। এটি জার্মানির তৈরি। আমরা তার লাইসেন্স চেক করে অস্ত্র’টির সঙ্গে মিলিয়েছি। এটার বৈধ লাইসেন্স আছে। ’

আরও পড়ুন